ছাত্রলীগের প্যানেল থেকে ডাকসুতে এসেও কি তারা বঞ্চিত?


ঢাবি টাইমস
Published: 2019-05-19 16:05:29 BdST | Updated: 2019-09-16 00:51:49 BdST

ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির বিরুদ্ধে নিজেদের বঞ্চিত দাবি করে আন্দোলনে থাকা বি এম লিপি আক্তার, তানভির হাসান সৈকত এবং তিলোত্তমা শিকদার তারা তিনজনই ছাত্রলীগের সুযোগ-সুবিধা পেয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে নেতৃত্বে রয়েছেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ-ডাকসুর ক্যাফেটেরিয়া বিষয়ক সম্পাদক হয়েছেন উর্দু বিভাগের ছাত্রী  বিএম লিপি, ছাত্রলীগের প্যানেল থেকে ডাকসুতে সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন থিয়েটারের ছাত্র তানভির হাসান সৈকত এবং দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের ছাত্রী তিলোত্তমা শিকদার যিনি কেন্দ্রীয় কমিটিতে উপ সম্পাদকের পদও পেয়েছেন। 

ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা মনে করছেন তারা পদবঞ্চিত কিংবা বঞ্চিত নয়।

শিক্ষার্থীরা বলছেন, একজনকেই কি সকল সুযোগ-সুবিধা নিতে হবে? ছাত্রলীগে হাজার হাজার নেতাকর্মী। তারা কি কোনো সুযোগ সুবিধা পাবে না।

আর যারা বঞ্চিত হয়েছেন বলে দাবি করছেন, তারা বিভিন্ন সময় ছাত্রলীগের নেতৃত্ব ছিলেন। এরকম ভাবে বিভিন্ন কমিটিতে আগের কমিটির নেতারা বাদ পড়েছেন। এটি একটি স্বাভাবিক প্রক্রিয়া। কিন্তু বিষয়টিকে ভিন্নভাবে উপস্থাপন করছেন বিভিন্ন শ্রেণীর নেতাকর্মীরা। যাতে বর্তমান কমিটিকে কোণঠাসা করা যায়।

সাধারণ শিক্ষার্থীরা বলেন, ক্যাম্পাসে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টির না করে সুন্দরভাবে ছাত্র রাজনীতি করা এবং তাদের কল্যাণে কাজ করে যাওয়া উচিত সকলের।

 

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।