কতদিন চলবে ছাত্রলীগের পদবঞ্চিতদের অবস্থান আন্দোলন?


শাহিন আব্দুল্লাহ
Published: 2019-06-09 22:54:06 BdST | Updated: 2019-10-23 12:24:57 BdST

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) রাজু ভাস্কর্যে ১৫ দিন যাবৎ অবস্থান  করছেন ছাত্রলীগের পদবঞ্চিতরা। ৩০১ সদস্যের কেন্দ্রীয় কমিটি থেকে বিতর্কিতদের বাদ দিয়ে বঞ্চিতদের পদায়নের দাবিতে বৈরী আবহাওয়ার মধ্যেও তারা টানা অবস্থান নিয়ে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন। কিন্তু কতদিন চলবে তাদের এই অবস্থান, সেই প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে সবার মাঝে।

গত ২৬ মে রাত ১টা থেকে দ্বিতীয় দফায় তারা অবস্থান কর্মসূচি পালন করে আসছেন। ১৩ মে ছাত্রলীগের ৩০১ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণার পর প্রায় এক মাস অতিবাহিত হলেও বিতর্কিতদের বিষয়ে চূড়ান্ত কোনো সিদ্ধান্ত নেয়নি ছাত্রলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক। প্রথম দফায় ১৭ জন বিতর্কিতের নাম ঘোষণা করে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ব্যবস্থা গ্রহণের ঘোষণা দিয়েও তা করা হয়নি বলে অভিযোগ উঠেছে। দ্বিতীয় দফায় ২৮ মে রাত ১টায় ১৯টি পদ শূন্য ঘোষণা করলেও নাম ও পদ প্রকাশ না করায় তা নিয়ে নেতাকর্মীদের মধ্যে সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে।

এ বিষয়ে ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক গোলাম রব্বানী ক্যাম্পাস টাইমসকে বলেন, তাদের (আন্দোলনরত) নেত্রীর পক্ষ থেকে ঈদ বোনাস দেওয়া হয়েছে। তারা কারো কথাই শুনছেন না। ছাত্রলীগে হাজার হাজার যোগ্য নেতাকর্মী রয়েছে, সবাইকে তো পদ দেয়া সম্ভব না। আর বিতর্কিত ইস্যু দ্রুতই সমাধান হবে।

এদিকে আন্দোলনরত ছাত্রলীগ নেতা তানভীর হাসান সৈকত এক ফেসবুক স্ট্যাটাসে লিখেছেন, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটি বিতর্কিত মুক্ত করার দাবিতে ১৫তম দিনে রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে অবস্থান কর্মসূচি চলছে। দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন চলছে, চলবে।

এ বিষয়ে ছাত্রলীগের সদ্য বিদায়ী কমিটির কর্মসূচি ও পরিকল্পনাবিষয়ক সম্পাদক রাকিব হোসেন গণমাধ্যমে বলেছেন, রাজু ভাস্কর্যেই ঈদ করেছি আমরা। আমাদের ঈদের আনন্দ থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে। ঈদে আওয়ামী লীগের দায়িত্বপ্রাপ্ত চার নেতা বা ছাত্রলীগ সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক কেউ দেখতেও আসেনি আমাদের। আমরা আপার (শেখ হাসিনা) কাছে যেতে চাই। তার কাছে ভুল তথ্য দেয়া হচ্ছে। আমরা অপরাধীদের বিষয়ে অকাট্য প্রমাণসহ তথ্য উপস্থাপন করব। এরপর নেত্রী যা সিদ্ধান্ত দেন মাথা পেতে মেনে নেব।

এরআগে ঈদের দিন সকালে রাজু ভাস্কর্যে আন্দোলনকারীদের দেখতে যান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান। এ সময় তিনি সবার জন্য সেমাই নিয়ে আসেন। দুপুরের খাবার নিয়ে আসেন বিশ্ববিদ্যালয়ের অমর একুশে হলের প্রাধ্যক্ষ। সেমাই নিয়ে আসেন ডাকসু নির্বাচনে স্বতন্ত্র জোট মনোনীত ভিপি প্রার্থী অরণি সেমন্তি খান।