সংকটাপন্ন শিক্ষার্থীদের পাশে তিন ছাত্রলীগনেতা


ঢাবি টাইমস
Published: 2020-05-20 21:10:16 BdST | Updated: 2020-08-12 03:43:06 BdST

করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) এর কারণে সৃষ্ট আর্থিক সংকট মোকাবেলায় শিক্ষার্থীদের পাশে দাড়িয়েছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের তিন কেন্দ্রীয় নেতা। নিজেদের টিউশনি ও পরিবারের কর্মজীবীদের উপার্জন বন্ধ হয়ে যাওয়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এমন অনেক শিক্ষার্থীর পরিবার এই মুহুর্তের আর্থিক সংকটে রয়েছে ।এমতাবস্থায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সাথে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করতে উদ্যোগী হোন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের তিন কেন্দ্রীয় নেতা।

তারা ' সুহৃদ ' নামে একটি সাংগঠনিক প্ল্যাটফর্ম থেকে ৬০ জন শিক্ষার্থীর একটি তালিকা সংগ্রহ করে পরিস্থিতি বিবেচনায় ১৫০০ থেকে ২০০০ টাকা করেে নগদ, বিকাশ অথবা রকেট মোবাইল ব্যাংকিং দ্বারা অর্থ প্রেরন করছেন।

এই কার্যক্রমের অন্যতম উদ্যোক্তা বাংলাদেশ ছাত্রলীগের উপ-বিজ্ঞান সম্পাদক সবুর খান কলিন্সকে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন ১৯৪৮ সালে সেই সময়ের সামাজিক,রাজনৈতিক সংকটে দেশের পাশে দাঁড়িয়ে দেশের জন্য সর্বোচ্চ ত্যাগ ও সক্ষমতা বিসর্জনের নিমিত্তেই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশ ছাত্রলীগ প্রতিষ্ঠা করেছিলেন।আমি সেই সংগঠনের একজন আদর্শিক কর্মী।এই মহামারিতে মানবিক অনুভুতি থেকেই আমি আমার সামর্থের সর্বোচ্চটুকু দিয়ে শিক্ষার্থী ভাই-বোনদের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছি। আমাদের এই কার্যক্রমে বিভিন্ন পেশায় নিয়োজিত আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের কিছু বড় ভাই আমাদের সহায়তা করেছেন তাদেরকে আমি সকল শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানাই ।

আরেক উদ্যোক্তা বাংলাদেশ ছাত্রলীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক মেহেদী হাসান বাপ্পীকে ফোন দিলে তিনি বলেন-বাংলাদেশ ছাত্রলীগ এ দেশের সব সামাজিক, রাজনৈতিক, সাংস্কৃতিক কিংবা অর্থনৈতিক সংকটে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ দেশের মানুষের পাশে ছিল, সেই ঐতিহাসিক দায়বদ্ধতা থেকেই আমিও নিজেকে মানুষের পাশে দাড়ানোর এই উদ্যোগের সাথে সম্পৃক্ত রেখেছি।

এই কার্যক্রমে পরিশ্রমী ভূমিকা পালন করে চলেছেন আরেক উদ্যোক্তা বাংলাদেশ ছাত্রলীগের উপ-বিজ্ঞান সম্পাদক খন্দকার আহসান হাবীব।আমাদের এই প্রতিনিধিকে তিনি জানান ছাত্র-ছাত্রীদের কল্যাণে কাজ করাই ছাত্রনেতা ও ছাত্রসংগঠনের কাজ। বাংলাদেশ ছাত্রলীগের একজন ক্ষুদ্র কর্মী হিসেবে আমি আমার সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শিক চেতনায় উদ্ভুদ্ধ হয়েই নিজেকে এই কাজে সম্পৃক্ত রেখেছি।