ঢাবির হলে খাবার নিয়ে মেস ম্যানেজার ও ছাত্রলীগনেতার 'ছুরিকাঘাত'


টাইমস অনলাইনঃ
Published: 2017-10-11 03:30:41 BdST | Updated: 2017-12-12 16:34:21 BdST

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) সলিমুল্লাহ মুসলিম (এসএম) হলের মেস ঐতিহ্য থেকে খাবার নিয়ে কথা কাটাকাটির ঘটনায় মেস ম্যানেজারকে (চলতি সেশন) ছুরিকাঘাত করেছেন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির এক নেতা। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী মেস ম্যানেজার হলেন ওমর ফারুক। তিনি চতুর্থ বর্ষে অধ্যয়নরত এবং চলতি সেশনে হলের মেস ম্যানেজার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি বর্তমানে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি আছেন। সাধারণত প্রতি ১৫ দিনের (এক সেশন) জন্য মেসে খাওয়া শিক্ষার্থীদের মধ্য থেকে প্রত্যেকে একবার ম্যানেজারের দায়িত্বপালন করে থাকেন।

ওই শিক্ষার্থীকে ছুরিকাঘাতের বিষয়টি স্বীকার করেছেন অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা তালহা যুবায়ের। যিনি ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এবং ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের ২০১০-১১ সেশনের শিক্ষার্থী। তবে তাকেও ছুরিকাঘাত করা হয়েছে বলে দাবি করেন।

আহত ওমর ফারুখ বলেন, ‘ছাত্রলীগ নেতা তালহার এক ছোট ভাই হলের মেস থেকে খাবার নিতে আসে। সে একজনের খাবারের টাকা দিয়ে তিন জনের খাবার নিয়ে যায়। এতে আমি বাধা দেই। পরে তালহা এসে আমাকে গালিগালাজ করে। এক পর্যায়ে আমাকে ছুরি দিয়ে আঘাত করে। এতে আমার বাঁ হাত কেটে যায়।’

এ বিষয়ে অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা তালহা যুবায়ের বলেন, ‘আমি বাইরে থাকায় আমার হলের এক ছোট ভাইকে খাবার আনতে পাঠিয়েছিলাম। কিন্তু সে খাবার না দিয়ে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে এবং আমাকে তার সঙ্গে দেখা করতে বলে। পরবর্তীতে আমি তার সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে মেসের সামনে থেকে পেছনে ডেকে আনি। এ সময় সে আমার সঙ্গে কথা কাটাকাটি করে। এক পর্যায়ে সে আমার জন্য বটি নেয়। তখন সে আমাকে কুপিয়েছে আমিও কুপিয়েছি।’

ঘটনার বিষয়ে জানতে হল প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক মাহবুবুল আলম জোয়ারদারকে ফোনে পাওয়া যায়নি।

সংবাদটি জাগোনিউজ২৪ থেকে নেয়া 

এমএসএল 

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।