জাতীয় নিরাপত্তার প্রতীক নৌকা : ছাত্রলীগ সভাপতি


টাইমস অনলাইনঃ
Published: 2018-01-10 00:00:23 BdST | Updated: 2018-01-16 15:37:13 BdST

ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ বলেছেন, দেশ ও জাতির উন্নয়ন ও জাতীয় নিরাপত্তার প্রতীক নৌকা। এই প্রতীকের ওপর আস্থাশীল থাকার বিষয়ে জনগণের সঙ্গে ছাত্রলীগের সম্পৃক্ততা বাড়াতে হবে। শুধু রাজনীতি করলে হবে না, সুশিক্ষায় শিক্ষিত হতে হবে।

তিনি বলেন, ছাত্রনেতা শহীদ মনিরুজ্জামান বাদল বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক ছিলেন। সুশিক্ষিত এবং উদারতার প্রতীক ছিলেন। দলের জন্য ছিলেন নিবেদিত প্রাণ। তাই ছাত্রলীগের প্রতিটি নেতাকর্মীর মনে তিনি আজও অম্লান।

মঙ্গলবার দুপুরে বাগেরহাটের শরণখোলা উপজেলায় ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক বাগেরহাটের কৃতী সন্তান শহীদ মনিরুজ্জামান বাদলের ২৬তম শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষে রায়েন্দা পাইলট উচ্চ বিদ্যালে আয়োজিত স্মরণসভায় তিনি একথা বলেন।

ছাত্রলীগ সভাপতি বলেন, ছাত্রলীগের রয়েছে সুমহান ইতিহাস। বঙ্গবন্ধুর হাতেগড়া এই সংগঠনের প্রতিটি পরতে পরতে রয়েছে সংগ্রাম আর সাফল্যের ইতিহাস। স্বাধীনতাবিরোধী শক্তি ছাত্রলীগে অনুপ্রবেশ করে এই ঐতিহ্যবাহী দলের ভাবমূর্তি নষ্ট করতে এখনও সক্রিয়। তাই ছাত্রলীগকে থাকতে হবে সদা তৎপর। দেশের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষায় আওয়ামী লীগের কোনো বিকল্প নেই। তাই আগামী সংসদ নির্বাচনে অবশ্যই এই দলকে জয়ী করতে হবে। এজন্য ছাত্রলীগকে রাখতে হবে অনন্য ভূমিকা।

স্মরনসভায় অতিথির বক্তব্যে ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি বদিউজ্জামান সোহাগ বলেন, দেশের জনগণ শেখ হাসিনার সততা, দক্ষতা, যোগ্যতা দেখেছে। দেশের অগ্রযাত্রায় তার ওপর আস্থাশীল। বিএনপির দেখানোর মতো দর্শনীয় ইতিবাচক রাজনৈতিক কোনো কর্মকাণ্ড নেই। তাই আগামী নির্বাচনে শেখ হাসিনার কোনো বিকল্প নেই।

শরণখোলা উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক হাসান মীরের সভাপতিত্বে স্মরনসভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ সহ-সভাপতি শেখ তুহিন, সাইদুর রহমান, বাগেরহাট জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. মনির হোসেন, সাধারন সম্পাদক সরদার নাহিয়ান আল-সুলতান ওশান, শনণখোলা-মোরেলগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সকল সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

এর আগে সকালে শহীদ মনিরুজ্জামান বাদলের শাহাদাৎ বার্ষিকীতে কালোব্যাজ ধারণ, বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি ও বাদলের মাজারে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়।

উল্লেখ্য, ১৯৯২সালের ৯ জানুয়ারি বাংলাদেশ ছাত্রলীগের তৎকালিন সাংগঠনিক সম্পাদক মনিরুজ্জামান বাদল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আততায়ীর গুলিতে শহীদ হন। এদিন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি চত্বরে ছাত্রলীগের পুনর্মিলনী অনুষ্ঠান চলাকালে কতিপয় দুষ্কৃতিকারী মঞ্চ থেকে বাদলকে ডেকে নিয়ে যায়। পরে তাকে সামসুন্নাহার হলের সামনে নিয়ে নির্মমভাবে গুলি করে হত্যা করা হয়।

বিডিবিএস 

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।