মাদক সম্পৃক্ততার প্রমাণ দিলে পদত্যাগ করব : সোহাগ


ঢাবি টাইমস
Published: 2018-02-10 19:53:05 BdST | Updated: 2018-08-15 09:36:35 BdST

কখনো মাদক ব্যবসা কিংবা মাদকের সাথে কোনোভাবে সম্পৃক্ত ছিলাম-এমন অভিযোগ কেউ প্রমাণিত করতে পারলে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটি থেকে স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করবেন বলে ঘোষণা দিয়েছেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটির পরিবেশ বিষয়ক উপ-সম্পাদক মুজাহিদুল ইসলাম সোহাগ।

সম্প্রতি একটি জাতীয় দৈনিকে “ছাত্রলীগ নেতাদের মাদক ব্যবসা” শিরোনামে প্রতিবেদনে তার নাম থাকায় তিনি এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে এমন চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেন।

শনিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির কার্যালয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে ছাত্রলীগ নেতা মুজাহিদুল ইসলাম সোহাগ বলেন, মাদক দূরে থাক, কখনো কোনো দিন সিগারেটও হাতে নেইনি। অথচ একটি শীর্ষ দৈনিকে যেভাবে পুলিশ প্রতিবেদনের উল্লেখ করে অন্যদের সাথে আমরা নামও জুড়ে দেয়া হয়েছে তাতে আমি রীতিমত হতাশ, ক্ষুব্ধ, বাকরুদ্ধ।

তিনি আরো বলেন, ‘প্রথম আলো’ পত্রিকা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের কথা বলেছে। অথচ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, এমন কোনো প্রতিবেদন জমা পড়েনি। তারপরও যদি কোনো পুলিশ প্রতিবেদনে মাদকদ্রব্যের সঙ্গে সম্পৃক্ততায় আমার নাম থাকে তবে আমি বলবো, সেই রিপোর্ট ভুল এবং অসম্পূর্ণ। কারণ মাদক ব্যবসা বা এ কাজে জড়িত এমন কারো সাথে আমার দূরতম সম্পর্ক নেই।

সোহাগ বলেন, সংবাদপত্র জাতির দর্পন। সাংবাদিকরা জাতির বিবেক। তাই পুলিশ প্রতিবেদন হুবহু না ছেপে আরো বেশি অনুসন্ধান করা অনুসন্ধান সাংবাদিকতার নীতি বলে মনে করি। কিন্তু ‘প্রথম আলো’ আমার বিষয়ে বিস্তারিত অনুসন্ধান না করে অন্যদের সাথে আমার নামও ছেপেছে। এর ফলে আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করা হয়েছে, সর্বোপরি দেশের ঐতিহ্যবাহী ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ভাবমূর্তিকে ক্ষুন্ন করার অপচেষ্টা করা হয়েছে।

তিনি বলেন, যখন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশকে একটি সুখী, সমৃদ্ধ ও উন্নত দেশের কাতারে নিয়ে যাওয়ার লক্ষে কাজ করছেন এবং বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন মাদকের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছেন তখন আমিও তাদের লক্ষ্য অর্জনে মাদকের বিরুদ্ধে সকল কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছিলাম। আমার স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় জীবনের কোনো সহপাঠী বা বন্ধু বলতে পারবে না মাদক দূরে থাক একটি সিগারেটও হাতে নিয়েছি। তাই প্রথম আলোর মতো পত্রিকা পর্যাপ্ত অনুসন্ধান না করে যেভাবে আমার নাম ছেপেছে তার তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি। একই সাথে প্রত্যাশা করি, প্রথম আলো কর্তৃপক্ষ আমার এই বক্তব্য তাদের পত্রিকায় হুবহু ছাপিয়ে বিভ্রান্তির অবসান ঘটাবে।

বিডিবিএস 

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।