কোটা ব্যবস্থা মোটেই যৌক্তিক-স্বচ্ছ নয়: ড. জাফর ইকবাল


টাইমস প্রতিবেদক
Published: 2018-04-09 22:01:30 BdST | Updated: 2018-08-16 14:21:03 BdST

বিদ্যমান কোটা ব্যবস্থা কোনোভাবেই যৌক্তিক, স্বচ্ছ নয়। পৃথিবীর অনেক দেশেই কোটা রয়েছে। কিন্তু সেটা যুক্তিপূর্ণ, সামঞ্জস্যপূর্ণ হতে হবে। এটা অনেক বেশি হয়ে গেছে, যতটুকু শুনলাম মেধাবীর চেয়ে কোটার সংখ্যা বেশি। এটা কেমন কথা। এটা মোটেই যুক্তিপূর্ণ না, কোনোভাবেই না।

সোমবার (৯ এপ্রিল) বিকেল ৩টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের আইআইসিটি ভবনে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, কোটা প্রথার সুযোগে মুক্তিযুদ্ধকে অসম্মান করার একটা সুযোগ তৈরি হয়েছে, যা কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। আমি কোনোভাবেই কোটার পক্ষে না। একটি কোটা একবার ব্যবহার করা যায়, ৪/৫ বার ব্যবহার কোনোভাবেই ফেয়ার না।

তিনি এ অবস্থার অবসান দাবি করেন। ছাত্রদের দাবি যৌক্তিক উল্লেখ করে বলেন, তারা কোটার সংস্কার চাইছে, পৃথিবীর সব জায়গাতেই সংস্কার হয়। এখানেও হওয়া উচিত।

‘কোটা নিয়ে একটা আন্দোলন হচ্ছে। আমার কাছে মনে হয়েছে কোটার অনুপাত মোটেই ঠিক নেই। এতো বেশি কোটা থাকে, এটা কি করে সম্ভব। আমার সবচেয়ে দুঃখ লাগছে, মানুষজনের মধ্যে ক্ষোভ তৈরি হয়েছে মুক্তিযুদ্ধ কোটা নিয়ে। মুক্তিযোদ্ধাদের আমরা এতো ভালোবাসি, কিন্তু এ বিষয়টি নিয়ে মুক্তিযোদ্ধাদের অসম্মান করার সুযোগ হয়েছে।’

জাফর ইকবাল বলেন, এখন বলার সুযোগ তৈরি হয়েছে যে মুক্তিযোদ্ধাদের বাচ্চাকাচ্চাদের জন্য মেধাবীরা চাকরির সুযোগ পাচ্ছে না। কোটা যদি ভিজিবল একটা জায়গায় থাকতো, তবে এভাবে মুক্তিযোদ্ধাদের অসম্মানের সুযোগ তৈরি হতো না।

শিক্ষার্থীদের উপর বিভিন্ন জায়গায় পুলিশের হামলা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ছাত্রদের উপর এ হামলা বাড়াবাড়ি। এটা যেন বিস্ফোরণের পর্যায়ে না যায়। এ হামলার ঘটনায় আমি সত্যিই মর্মাহত। ছাত্রদের গায়ে হাত দেওয়া খুবই খারাপ।

পুলিশের ভূমিকা প্রসঙ্গে এই শিক্ষাবিদ আরও বলেন, আমাদের দেশে পুলিশ আগে এমন করতো না। কিন্তু এখন কি হয়েছে বুঝতে পারছি না। সব ক্যাম্পাসেই দেখি পুলিশ মোতায়েন। এমনটি আগে ছিল না।

কারণ পুলিশ ঢুকতে আগে ক্যাম্পাসে প্রক্টরের অনুমতি লাগতো। এটা ঠিক হচ্ছে না।

এমএস/ ০৯ এপ্রিল ২০১৮

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।