সমন্বয়হীনতার মধ্য দিয়ে খুলল শাবিপ্রবির আবাসিক হল


মাসুদ আল রাজী
Published: 2018-06-23 19:30:50 BdST | Updated: 2019-08-20 05:40:40 BdST

ঈদের আনন্দ আর খুশিকে সবাই চায় নিজের পরিবারের সাথে উদযাপন করতে। তারপরও নিজের পড়ালেখা আর ক্যারিয়ারের কথা চিন্তা করে অনেকই পারেন না নিজের পরিবারের সাথে ঈদ করতে। পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের অনেক শিক্ষার্থীরাই চান ক্যাম্পাস বন্ধ হলেও আবাসিক হলে থেকে পড়াশুনা করতে। তারপরেও দেশের সকল পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের হলগুলো ঈদের ছুটিতে খোলা থাকলেও শাবিপ্রবির হলগুলো ছিল বন্ধ । ঈদের বন্ধের পর একেক হল একেক সময় খোলার নোটিশে একই সাথে ভিন্ন হলের শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসে এসে বিপাকে পড়েন ।

সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, বৃহস্পতিবার বেগম সিরাজুন্নছা চৌধুরী ছাত্রী হল এবং মুজতবা আলী ছাত্র হল খুললেও বাকী তিন হল ছিল বন্ধ। এসময় শাহপরান হল, প্রথম ছাত্রী হল ও বঙ্গবন্ধু হলের শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করে বলেন, তারা অনেক দূর-দুরান্ত থেকে এসে হল বন্ধ পেয়েছেন। কিছুদিন পরেই অনেকের পরিক্ষা থাকলেও এখন আবাসিক হলের শিক্ষার্থীরা কোথায় যাবেন তা অনেকটাই অনিশ্চিত।

এ বিষয়ে বঙ্গবন্ধু হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক ড.এস.এম হাসান জাকিরুল ইসলাম বলেন, বঙ্গবন্ধু হল শুক্রবার (২২ই জুন) সকাল ৯ ঘটিকায় খুলবে এবং শুধুমাত্র আবাসিক হলের বৈধ শিক্ষার্থীদেরকেই প্রবেশ করতে দেওয়া হবে। অন্য হলগুলো কোনদিন খুলবে বা খোলার কথা ছিলো তার কিছুই তিনি জানেন না বলে জানান। প্রথম ছাত্রী হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক আমিনা পারভিন জানান যে, তার হলের সকল শিক্ষার্থীদেরকেই নোটিশে আগামিকাল (২২ই জুন) সকাল ১০ ঘটিকায় খোলার কথা জানিয়ে দেওয়া হয়েছিলো এবং যথাসময়েই ১ম ছাত্রী হল খুলবে।

অপরদিকে বেগম সিরাজুন্নছা চৌধুরী ছাত্রী হলে বৃহস্পতিবার (২১ই জুন) সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত বিদ্যুৎ ও পানি পাননি শিক্ষার্থীরা। টানা কয়েকদিন হল বন্ধের ফলে হলের পানির মান খুব খারাপ বলে অসন্তোষ প্রকাশ করেন ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীরা।

টিআই/ ২৩ জুন ২০১৮

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।