বোর্ড পরীক্ষায় গণফেল, ২১ শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা, বিক্ষোভ


ঢাকা
Published: 2019-04-29 23:17:44 BdST | Updated: 2019-05-26 20:21:06 BdST

ভারতে তেলেঙ্গানা বোর্ড অফ ইন্টারমিডিয়েট এডুকেশনের একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণির চূড়ান্ত পরীক্ষায় ফেল করায় আত্মহত্যা করেছে অন্তত ২১ শিক্ষার্থী। প্রায় ১০ লাখ পরীক্ষার্থীর মধ্যে তিন লাখেরও বেশি শিক্ষার্থী অনুত্তীর্ণ হয়েছে পরীক্ষাটিতে। ধারণা করা হচ্ছে, সরকারের কোনো ভুলের কারণেই এমনটি হয়েছে। খবর দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়া ও দ্য ডেইলি মেইলের।

স্থানীয় গণমাধ্যম অনুসারে, নতুন এক আইটি সিস্টেম ব্যবহার করে উত্তরপত্র মূল্যায়ন করায় এত সংখ্যক শিক্ষার্থী পাস করতে ব্যর্থ হয়েছে। হতাশ হয়ে অনেকে বেছে নিয়েছেন আত্মহননের পথ। শরীরে আগুন ঢেলে, ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে, রাসায়নিক সার খেয়ে সহ অন্যান্য উপায়ে আত্মহনন করেছে অনেক শিক্ষার্থী।

এদিকে, এ বিষয়ে ভুল শিকার করেছেন স্থানীয় মন্ত্রীরা। এবার সরকারের তরফ থেকে বোর্ড পরীক্ষা যথাযথভাবে সম্পন্ন করার দায়িত্ব পায় গ্লোবারেনা টেকনোলজিস। শিক্ষার্থী এবং অভিভাবকেরা এই সংস্থার সিস্টেম নিয়ে অভিযোগ করেছেন।

স্থানীয়দের অভিযোগ, পূর্বের পরীক্ষাগুলোয় যেসব শিক্ষার্থী ভাল নম্বর পেয়ে পাস করেছে তারাও এই পরীক্ষায় অনেক বিষয়ে পর্যাপ্ত নম্বর না পেয়ে অনুত্তীর্ণ হয়েছে।

এক অভিভাবক বসুবর্ধন রেড্ডি ইন্ডিয়া টুডেকে বলেন, একাদশ শ্রেণিতে ৯৫ শতাংশ নম্বর পাওয়া ছাত্ররা কম নম্বর পাওয়া তো দূরের কথা, কী করে ফেল করতে পারে, সেখানেই আমাদের প্রশ্ন।

অভিভাবকদের অভিযোগ গুরুত্ব পায় যখন শূন্য পাওয়া এক পরীক্ষার্থীর খাতা পুনর্মূল্যায়ন করার পর তার নম্বর হয়ে যায় ৯৯।

এমতাবস্থায় রাজনীতিবিদরা শিক্ষার্থীদের প্রতি নিজের ক্ষতি না করার আহ্বান জানিয়েছেন। প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, বিনামূল্যে তাদের উত্তরপত্র পুনর্মূল্যায়ন করা হবে।

কিন্তু অভিভাবকরা মন্ত্রীদের প্রতিশ্রুতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। কারণ, যে সিস্টেম ব্যবহার করে উত্তরপত্র দেখার কারণে এমনটা হয়েছে, সে সিস্টেম ব্যবহার করেই উত্তরপত্র পুনর্মূল্যায়ন করা হবে বলে জানিয়েছেন মন্ত্রীরা।

উল্লেখ্য, তেলেঙ্গানা বোর্ড অফ ইন্টারমিডিয়েট এডুকেশনের একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণীর চূড়ান্ত পরীক্ষায় অংশ নেয় ৯ লাখ ৭৪ হাজার শিক্ষার্থী। এদের মধ্যে অনুত্তীর্ণ হন ৩ লাখ ২৮ হাজার।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।