স্ত্রী পালানোর শোকে কবিতা লিখেছেন দুবাই শাসক


ঢাকা
Published: 2019-07-01 21:14:48 BdST | Updated: 2019-07-21 15:44:41 BdST

দুবাইয়ের শাসক মোহাম্মদ বিন রশিদ আল মাখতুম কোটি কোটি টাকা নিয়ে পালানো স্ত্রীর শোকে কবিতা লিখেছেন। সম্প্রতি তার ষষ্ঠ স্ত্রী প্রিন্সেস হায়া বিন্তে আল হুসেইন প্রায় ৩৩২ কোটি টাকা নিয়ে পালানোর পর দুবাই শাসকের কাছে বিবাহ বিচ্ছেদের নোটিশও পাঠান।

বিশ্বের অন্যতম বিলাশবহুল দুবাইয়ে শাসক স্ত্রীর এমন ঘর ত্যাগের বিষয়টি মেনে নিতে পারেননি। তাইতো সেই কষ্টে কবিতা লিখে স্ত্রীর সমালোচনা করেছেন। তার কবিতা ‘তুমি বাঁচো এবং মরো’ শিরোনামে প্রকাশ পেয়েছে। কবিতায় প্রিন্সেস হায়াকে বিশ্বাসঘাতক বলে উল্লেখ করেছেন তিনি।

কবিতার শুরুতে তিনি লিখেছেন, ‘কিছু ভুল বিশ্বাসঘাতকতার দৃষ্টান্ত হিসেবে পরিচিত/ তুমি সীমা লঙ্ঘন এবং বিশ্বাসঘাতকতা করেছো/ তুমি বেঈমান, তুমি মহামূল্যবান বিশ্বাসের সঙ্গে বেঈমানি করেছো/ তুমি এখন বেঁচে থাকো বা মরে যাও তাতে আমার যায় আসে না।’

জানা গেছে, প্রিন্সেস হায়া বিন্তে আল হুসেইন বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৩৩২ কোটি টাকা ও তার সন্তান নিয়ে দুবাইয়ের শাসককে ছেড়ে পালিয়ে গেছেন। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি থেকে জনসম্মুখে প্রিন্সেস হায়াকে দেখা যাচ্ছিল না।

শুধু জনসম্মুখে নয় নিজের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের অ্যাকাউন্টগুলোও বন্ধ করে রেখেছেন হায়া। কিন্তু ওসবের মাধ্যমেই তিনি নিয়মিত সেবামূলক বিভিন্ন কর্মকাণ্ডের কাজের ছবি পোস্ট করতেন।

বলা হচ্ছে, তিনি তার ১১ বছর বয়সী মেয়ে জালিয়া এবং ৭ বছর বয়সী পুত্র জাভেদকে নিয়ে জার্মানিতে পালিয়ে গেছেন। সেখানেই রাজনৈতিক আশ্রয়ের আবেদন করেছিলেন তিনি।

মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক বিভিন্ন গণমাধ্যম জানিয়েছে, দুবাইয়ে থাকা জার্মানির কোনো কূটনীতিক প্রিন্সেস হায়াকে পালাতে সাহায্য করেছে। আর এই দাবির পক্ষে যুক্তি দেখিয়ে বলা হচ্ছে, দেশ দুটির মধ্যে বর্তমানে কূটনৈতিক সম্পর্কের চরম টানাপোড়েন চলছে।

এ ছাড়া সেসব গণমাধ্যমের খবরে আরও বলা হচ্ছে, দুবাইয়ের শাসক শেখ মোহাম্মদ বিন রশিদ আল মাখতুম তার স্ত্রীকে ফেরত পেতে জার্মানির প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন। কিন্তু ক্ষমতাধর দুবাই শাসকের এমন আবেদনেও কোনোবাবে সাড়া দেয়নি জার্মান কর্তৃপক্ষ।

ধারণা করা হচ্ছে, সন্তানদের নিয়ে যাতে অনিশ্চিত জীবন যাপন করতে না হয় তাই প্রিন্সেস হায়া ৩৩২ কোটি টাকা নিয়ে দুবাইয়ের শাসককে ছেড়ে পালিয়েছেন। কিন্তু দুবাইয়ের শাসক স্ত্রী-সন্তান হারানোর বেদনায় শোক প্রকাশ করে কবিতা লিখলেন।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।