কেনিয়ায় প্রাইমারি স্কুলে ‘পদদলিত’ হয়ে ১৪ শিশুর মৃত্যু


Dhaka
Published: 2020-02-04 16:54:20 BdST | Updated: 2020-04-08 07:45:14 BdST

কেনিয়ার পশ্চিমাঞ্চলে একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পদদলিত হয়ে অন্তত ১৪ শিশু শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে বলে কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

সোমবার বিকালে রাজধানী নাইরোবির উত্তরপশ্চিমে কাকামেগা প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ঘটনাটি ঘটেছে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

কেনিয়ার স্থানীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, স্থানীয় সময় প্রায় ৫টার দিকে শিশুরা স্কুল ছুটির পর ক্লাস থেকে বের হয়ে বাসায় ফেরার সময় পদদলনের ঘটনাটি ঘটে।

কেনিয়ার শিক্ষামন্ত্রী জর্জ মগোহা স্থানীয় গণমাধ্যমকে ১৪ শিক্ষার্থী নিহত হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন।

সিটিজেন টিভিকে তিনি বলেন, “সন্তান হারানো খুব বেদনাদায়ক ঘটনা। সন্তান হারানো পিতামাতাদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি।”

এ ঘটনায় আহত আরও প্রায় ৪০ শিশুকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের কয়েকজনের অবস্থা সঙ্কটজনক। আহত কিছু শিশুকে চিকিৎসার পর ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

কীভাবে পদদলনের ঘটনাটি ঘটলো তা এখনও পরিষ্কার হয়নি। ঘটনার বিষয়ে একটি তদন্ত শুরু করা হয়েছে বলে কাকামেগার পুলিশ কমান্ডার ডেভিড কাবেনা স্থানীয় গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন।

কয়েকটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, স্কুল ছুটির পর শিক্ষার্থীরা সরু একটি সিঁড়ি দিয়ে হুড়োহুড়ি করে নামার সময় সেটি ভেঙে পড়ে।

দৈনিক ন্যাশন সংবাদপত্র বলেছে, দৌঁড়াতে থাকা কিছু শিশু ভবনটির চতুর্থ তলা থেকে পড়ে যায়।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আসা ভিডিওতে একটি হাসপাতালের সামনে বহু লোককে ভিড় করে থাকতে দেখা গেছে, আহত শিশুদের এখানেই চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছিল।

টুইটারে কেনিয়া রেডক্রস বলেছে, ‘প্রাণঘাতী পদদলনের’ ঘটনার পর জরুরি সহযোগিতা দিয়েছে তারা।

যারা মারা গেছে তাদের পরিবার ও বন্ধুদের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছে কেনিয়ার শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

কেনিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী রাইলা ওডিঙ্গা দ্রুত তদন্ত শুরু করে ‘ঘটনার আদ্যোপান্ত তুলে আনার’ আহ্বান জানিয়েছেন।

গেল সেপ্টেম্বরে নাইরোবির একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শ্রেণিকক্ষ ধসে আট শিশু নিহত ও ৬৯ শিশু আহত হয়েছিল।