৩ নভেম্বরই মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন : ট্রাম্পের উপদেষ্টা


Dhaka
Published: 2020-08-03 18:40:42 BdST | Updated: 2020-09-24 12:07:57 BdST

চলতি বছরের মার্কিন নির্বাচন পেছানোর ব্যাপারে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প যে মন্তব্য করেছিলেন তা নাকচ করে দিয়েছেন হোয়াইট হাউসের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। রোববার হোয়াইট হাউসের উপদেষ্টা এবং ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচারণা শিবির বলেছেন, আগামী ৩ নভেম্বরই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

হোয়াইট হাউসের চিফ অব স্টাফ মার্ক মিডোস বলেন, ‘মেইল-ইন-ব্যালটস’ নিয়ে উদ্বেগ দেখা দেয়ায় নির্বাচন পেছানোর কথা বলেছিলেন ট্রাম্প। মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিবিএসের ‘ফেইস দ্য নেশন’ অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে মিডোস বলেন, আমরা আগামী ৩ নভেম্বরই নির্বাচন আয়োজন করতে যাচ্ছি এবং প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প এই নির্বাচনে জয়ী হতে যাচ্ছেন।

প্রেসিডেন্টের নির্বাচনী প্রচারণা শিবিরের উপদেষ্টা জ্যাসন মিলারের কণ্ঠেও একই ধ্বনি শোনা গেছে। ফক্স নিউজ সানডে অনুষ্ঠানে মিলার বলেন, আগামী ৩ নভেম্বর নির্বাচন হতে যাচ্ছে এবং প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পও ৩ নভেম্বর নির্বাচন চান।

দীর্ঘদিন ধরেই প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প মেইল-ইন পদ্ধতিতে ভোট হলে তাতে জালিয়াতি হতে পারে বলে শঙ্কা প্রকাশ করে আসছেন। গত সপ্তাহে ট্রাম্প এক টুইটে বলেছিলেন, ‘সার্বজনীন মেইল-ইন ভোটিং নভেম্বরের নির্বাচনকে ইতিহাসের সবচেয়ে ভুল ও প্রতারণামূলক নির্বাচণে পরিণত করবে; যা যুক্তরাষ্ট্রের জন্য মারাত্মক বিব্রতকর।’

দেশটিতে করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় বুথে গিয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে জনসাধারণের ভোট দেয়ার বিষয়টি নিয়ে আপত্তির কথা জানিয়ে মেইল-ইন-ভোটিংয়ের পক্ষে মত দিয়েছিল বিরোধীদল ডেমোক্র্যাটিক পার্টি। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প মেইল-ইন-ভোটিংয়ে জালিয়াতি হতে পারে বলে আশঙ্কা জানিয়ে নির্বাচন পেছানোর প্রস্তাব দেন।

তবে নির্বাচন স্থগিত কিংবা পেছানোর কর্তৃত্ব প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের নেই। নির্বাচন পেছাতে হলে এ সংক্রান্ত প্রস্তাব মার্কিন কংগ্রেসের উভয় কক্ষ থেকে পাস হতে হয়। প্রতিনিধি পরিষদ ডেমোক্র্যাট নিয়ন্ত্রিত হওয়ায় সেখান থেকে পাসের সম্ভাবনা ছিল না।

এছাড়া মার্কিন কংগ্রেসের উচ্চকক্ষ সিনেটের সংখ্যাগরিষ্ঠ প্রেসিডেন্টে ট্রাম্পের দল রিপাবলিকানের নেতা মিচ ম্যাককনেল এবং নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদের সংখ্যালঘু দল রিপাবলিকানের নেতা কেভিন ম্যাককার্থি উভয়ই ট্রাম্পের নির্বাচন পেছানোর ধারণা নাকচ করে দেন।

রিপাবলিকান দলীয় গভর্নর আসা হাটচিনসন সিএনএনকে বলেছেন, র্নিধারিত সময়েই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়া উচিত এবং সঠিকভাবে ব্যালট বহন নিশ্চিত করার দায়-দায়িত্ব রাজ্যগুলোর।