বৃহস্পতিবার, মার্চ ৩০, ২০১৭
UCC-LOGO1

হতাশা বাড়ছে ভারতের বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের

ঢাকাঃ ভারতের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ভবিষ্যৎ কর্মজীবন নিয়ে হতাশা আর উদ্বিগ্নতার মধ্যে পড়াশুনা চালিয়ে যাচ্ছে। আজকাল শিক্ষার্থীদের মধ্যে একাডেমিক বিষয় নিয়ে মানসিক চাপ, উদ্বিগ্নতা প্রকট আকার ধারণ করেছে। সম্প্রতি দেশটির নামকরা ৫ টি বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫০০ তরুণ শিক্ষার্থীর উপর গবেষণা করে এ তথ্য জানায় Cosmos Institute of Mental Health and Behavioural Sciences (CIMBS)।

BANSAL

গবেষণায় দেখা যায়, নিয়মিত পরীক্ষার জন্য নিজেকে প্রস্তুত করা, ক্লাসে বেশি সময় দেয়া, অন্যান্য পড়াশুনা চালিয়ে নিতে তারা হিমশিম খাচ্ছেন। এজন্য অনেকের মনে হতাশা আর পরীক্ষা সংক্রান্ত উদ্বিগ্নতা বেড়ে গেছে।


সংস্থাটি জরিপ করে জানায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের ৬৪ দশমিক ৬ শতাংশ শিক্ষার্থীর মধ্যে হতাশার বিভিন্ন উপসর্গ পাওয়া গেছে। এর মধ্যে ১৭ শতাংশের কাছাকাছি শিক্ষার্থী নিজের ক্ষতি করতে এমনকি আত্মহত্যার পথ বেছে নিতে সিদ্ধান্ত নেয়। আর মানসিক চাপের কারনে ২০ শতাংশ শিক্ষার্থী মাদক নেয়া শুরু করেছে। ৩৪ শতাংশ ছাত্রী এবং ১৬ শতাংশ ছাত্র নিদ্রাহীনতায় ভোগেন। অর্থাৎ নারী শিক্ষার্থীরা মানসিক রোগে বেশি আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকিতে আছে।


 

প্রতিষ্ঠানটির মনোরোগবিদ ডা. সোবহানা মিতাল বলেন, নির্ঘুম রাত কাটানো আজকাল শিক্ষার্থীদের অভ্যাসে পরিণত হয়েছে। অনেকেই রাতে দেরিতে ঘুমায় এবং বেলা করে ঘুম থেকে ওঠে। সময়মতো পর্যাপ্ত ঘুম না হওয়ায় তাদরে মুড পরিবর্তন হয়ে যায়। এছাড়া কাজের প্রতি তার অনীহা চলে আসে, পড়ায় মনোযোগ দিতে কষ্ট হয়।

ডা. মিতাল আরো বলেন, গত দু’যুগ ধরে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে আত্মহত্যার প্রবণতা আশঙ্কাজনকভাবে বেড়ে গেছে। অনেক সময় তারা আবেগতাড়িত হয়ে সিদ্ধান্তহীনতায় ভোগে এবং আত্মঘাতী হয়ে যায়। তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের মধ্যে আত্মহত্যার যে প্রবণতা তা সঠিক সময় চিহ্নিত করতে হবে এবং মানসিক সুস্থতার জন্য তাকে চিকিৎসা সেবা দিতে হবে। আত্মহত্যা প্রতিরোধ এবং মানসিক চাপ কমানোর জন্য শিক্ষার্থীর জীবনবোধকে জাগ্রত করতে হবে।

সূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া

এমএল