বুধবার, ফেব্রুয়ারী ২২, ২০১৭
UCC-LOGO1

মন্ত্রী-এমপিরা পাচ্ছেন নতুন ১৭ বিশ্ববিদ্যালয়

1438175999

ঢাকা: সরকারি এমপি-মন্ত্রীরা নতুন করে আরও ১৭টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় পাচ্ছেন। এর মধ্যে রাজধানীতে হবে চারটি। বাকিগুলো রাজধানীর পার্শ্ববর্তী এলাকাসহ বিভিন্ন জেলায় স্থাপন করা হবে। এ নিয়ে দেশে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের সংখ্যা দাঁড়াবে ১১২টি।

নতুন করে রাজধানীতে আর বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় অনুমোদন না দিতে সরকারের নীতিগত সিদ্ধান্ত থাকলেও কয়েক দফায় ইতোমধ্যে ঢাকায় ৬টি বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমোদন দেয়া হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নীতিগত সিদ্ধান্তে অনুমোদন পেতে যাওয়া ১৭টির মধ্যে রাজধানীর বাণিজ্যিক এলাকায় চারটি বিশ্ববিদ্যালয় হবে। ফলে রাজধানীতে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছেই। বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানায়, সরকারদলীয় মন্ত্রী-এমপি ও রাজনৈতিক নেতারা বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমোদন পেতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবেদন করেন। সেই পরিপ্রেক্ষিতে আবেদনকারীদের নামে নতুন আরও ১৭টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় অনুমোদনে প্রধানমন্ত্রী নীতিগত সিদ্ধান্ত দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রীর দফতর থেকে সবুজ সংকেত আসায় ইতোমধ্যে ইউজিসি আটটি বিশ্ববিদ্যালয় পরিদর্শন প্রতিবেদন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছে।

রাজধানীতে নতুন আরও চার বিশ্ববিদ্যালয়
মহাখালীর বাণিজ্যিক এলাকায় ‘ইন্টারন্যাশনাল স্ট্যান্ডার্ড ইউনিভার্সিটি’। এটি প্রধানমন্ত্রীর বেয়াই ইঞ্জিনিয়ার এ কে এম মোশাররফ হুসেইনের নামে অনুমোদন পাবে। রাজধানীর বনানীর আই ব্লকে ‘ইউনিভার্সিটি অব মর্ডান টেকনোলজি’র উদ্যোক্তা হিসেবে বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মো. আবু নোমান হাওলাদারকে প্রস্তাবিত চেয়ারম্যান দেখানো হলেও নেপথ্যে কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরীর পৃষ্ঠপোষকতা রয়েছে।

‘ইন্টারন্যাশনাল কালচার ইউনিভার্সিটির ঠিকানা কুমিল্লায় দেয়া হলেও পরে ঢাকায় মিরপুর গাবতলীতে পরিবর্তন করা হয়েছে। এর উদ্যোক্তা হিসেবে ব্যবসায়ী সুলতান রাজ্জাকের নাম দেখানো হলেও এর নেপথ্যে ঢাকা-১৪ আসনের সংসদ সদস্য আসলামুল হক আসলাম রয়েছেন।

‘সিঙ্গাপুর ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ’। মিরপুর-১০, সেনপাড়া পর্বতায় এর ঠিকানা দেয়া হয়েছে। এর উদ্যোক্তা হিসেবে জাতীয় পার্টির সাতক্ষীরা-৪ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও হুইপ এইচ এম গোলাম রেজার নাম রয়েছে। তবে সংসদ সদস্যের সঙ্গে বিশিষ্ট একজন ব্যবসায়ী রয়েছেন বলে জানা গেছে।

রাজধানীর পার্শ্ববর্তী এলাকায়
কেরানীগঞ্জে ‘টেগার ইউনিভার্সিটি অব ক্রিয়েটিভ আটাস’। এর উদ্যোক্তা হিসেবে রয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যামিরেটাস অধ্যাপক আনিসুজ্জামান। তিনি সরকারদলীয় একাধিক ব্যক্তির মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর কাছে তদবির করে বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমোদনের অপেক্ষায় আছেন।

গাজীপুরের কালিয়াকৈরে স্থাপিত হবে ‘ইউনিভার্সিটি অব ম্যানেজমেন্ট সাইন্স’। এখানে ব্যবসায়ী জুবাইদুল রহমানের নাম উদ্যোক্তা হিসেবে দেখানো হয়েছে।

‘কামাল উদ্দিন আহমেদ ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি’। উদ্যোক্তা হিসেবে গুলশান নিকেতনের নিবাসী কামরুন নেসা রত্নার নাম দেয়া হলেও মূলত ঢাকা-১৫ আসনের সংসদ সদস্য কামাল আহমেদ মজুমদার নেপথ্যে ভূমিকা রাখছেন।

রাজধানীর বাইরে
পটুয়াখালীর লাউকাঠিতে ‘সাউথ রীজন ইউনিভার্সিটি’। এর উদ্যোক্তা বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ ও পটুয়াখালী-২ আসনের সংসদ সদস্য আ স ম ফিরোজ।

সিলেটের টিবি গেটে এলাকায় স্থাপিত হবে ‘আর টি এম আল কবির টেকনিক্যাল ইউনিভার্সিটি’। মিরপুর শেওড়াপাড়ায় ‘আর টি এম কমপ্লেক্সের’ মালিক ব্যবসায়ী আহমদ আল কবির এর উদ্যোক্তা হিসেবে রয়েছেন। তার সঙ্গে যুবলীগের (উত্তর) সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিল রয়েছেন।

বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের সঙ্ঘনায়ক শ্রদ্ধানন্দ মহাথের প্রেসিডেন্ট এইচ এন ভেন পাবেন ‘ইউনিভার্সিটি অব অতীশ দীপঙ্কর’। মুন্সীগঞ্জের বাজরাগজনিতে এর ঠিকানা উল্লেখ করা হয়েছে।

‘খুলনা খান বাহাদুর আহসানউল্লা ইউনিভার্সিটি’। স্থাপন করা হবে খুলনার সোনাডাঙ্গায়। এর উদ্যোক্তা ঢাকা আহছানিয়া মিশন এবং ইউরোপিয়ান কেস স্টাডি সেন্টারের পরিচালক অধ্যাপক ড. মাহমুদুল হাসান।

চাঁদপুরে ‘অ্যাপোলো ইউনিভার্সিটি অব সাইন্স অ্যান্ড টেকনোলজি’র উদ্যোক্তা চাঁদপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামসুল হক ভূঁইয়া।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ভাতশালায় ‘ইউনিভার্সিটি অব ব্রাহ্মণবাড়িয়া’ এর উদ্যোক্তা প্রধানমন্ত্রীর সাবেক একান্ত সচিব ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ আসনের সংসদ সদস্য আ ম উবাইদুল মোক্তাদির চৌধুরী। রংপুরের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও জাতীয় পার্টির নেতা মোস্তফা আজাদ চৌধুরী পেয়েছেন ‘রংপুর বিশ্ববিদ্যলয়’। এটির জন্য রংপুর সার্কিট হাউজ রোডের ঠিকানা ব্যবহার করা হয়েছে।

রংপুর মিঠাপুকুরে ‘নর্থ বেঙ্গল ইউনিভার্সিটি’। প্রস্তাবিত আবেদনে চেয়ায়ারম্যান হিসেবে রংপুরের স্থানীয় ব্যবসায়ী মো. আশরাফুল আলম আল-আমিনের নাম দেয়া হয়েছে।

ময়মনসিংহের ক্রিস্টাপুরে ‘রওশন এরশাদ ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ’। এর উদ্যোক্তা বিরোধীদলীয় নেতা বেগম রওশন এরশাদের নাম দেয়া হলেও ব্যবসায়ী ও বন্ধ হওয়া দারুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উত্তরা ক্যাম্পাসের মালিক আবুল হোসেন প্রধান হিসেবে কাজ করছেন বলে জানা গেছে।

এ বিষয়ে ইউজিসি চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. আব্দুল মান্নান বলেন, শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে নির্দেশনা আশায় আমরা ১৭টির মধ্যে আটটির পরিদর্শন কাজ শেষ করেছি। ইতোমধ্যে সেসব প্রতিবেদন মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। বিভিন্ন ঠিকানা ও নানা ভুল-ভ্রান্তি থাকায় বাকিগুলোর পরিদর্শন কাজ এখনো শেষ করা সম্ভব হয়নি। বিষয়গুলো সংশোধন করে পাঠানো হলে পর্যায়ক্রমে সব প্রক্রিয়া শেষ করা হবে। শিক্ষা মন্ত্রণালয় প্রতিবেদনগুলো পর্যবেক্ষণ করে যথাযথ ব্যবস্থা নেবে।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি নতুন করে ছয়টি বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমোদন দেয়া হয়। সব মিলিয়ে বর্তমানে ৯৫টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। আর এই ১৭টি প্রতিষ্ঠা হলে দেশে মোট বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় হবে ১১২টি। জাগোনউজ২৪

এমএসএল