নিকলী হাওরে ঘুরতে গিয়ে ‘বিপদে’ বিশ্ববিদ্যালয়ের ১০ শিক্ষার্থী


কিশোরগঞ্জ
Published: 2020-07-11 22:25:42 BdST | Updated: 2020-08-12 21:48:34 BdST

কিশোরগঞ্জে নিকলী হাওরের পানি দেখতে ট্রলারে করে বেড়াতে গিয়েছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ১০ শিক্ষার্থী। হাওরে ঘুরতে ঘুরতে ঘাট থেকে সাত-আট কিলোমিটার দূরে গিয়ে হঠাৎই বিকল হয়ে যায় তাদের ট্রলারটি। মাঝি হাল ধরার চেষ্টা করলেও দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে ট্রলারটি নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছিলো না। সেই সঙ্গে ঘনিয়ে আসছিল সন্ধ্যা।

শনিবার (১১ জুলাই) ৯৯৯ থেকে পাওয়া বিজ্ঞপ্তি অনুসারে, ৯৯৯ এ ফোন পেয়ে আটকে পড়া শিক্ষার্থীর শিক্ষার্থীকে উদ্ধার করেছে কিশোরগঞ্জের চামটাঘাট ফাঁড়ির নৌ পুলিশ।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় বাংলাদেশ পুলিশ পরিচালিত “জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯” একজন কলার ফোন করে জানান, তিনিসহ ১০জন কিশোরগঞ্জের একটি হাওরে ট্রলার বিকল হয়ে আটকে পড়েছেন। দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ায় তাদের ট্রলারটি ভাসছিল। তিনি তাদের উদ্ধারের জন্য অনুরোধ জানান।

উদ্ধার হওয়া শিক্ষার্থীরা হলেন- বিজিএমইএ বিশ্ববিদ্যালয়ের তুষার, নিলয়, রাকিব, সাফিন, সিয়াম, রকি, রিফাত, শামীম ও আরও দুইজনসহ মোট ১০ জন। তারা ঢাকার সাভারের অধিবাসী এবং তাদের বয়স ২০-২২ বছর।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, মোট ১০ শিক্ষার্থী পাঁচটি মোটরবাইকে সাভার থেকে রওনা দিয়ে দুপুর ১২টা নাগাদ কিশোরগঞ্জে পৌঁছান। তাদের উদ্দেশ্য হাওরে বেড়ানো। মিঠামইন থানাধীন বালিখোলা ঘাট থেকে একটি ট্রলার ভাড়া করে তাতে বাইকসহ উঠে পড়েন তারা। আশে পাশের বিভিন্ন হাওরে ঘুরে বেড়িয়ে বালিখোলা ঘাটে ফেরার পথে ঘাট থেকে সাত-আট কিলোমিটার দূরে করিমগঞ্জ থানাধীন নাওগাং হাওরে তাদের ট্রলারের প্রপেলারের পাখা ভেঙে যায়। তখন আবহাওয়া ছিলো দুর্যোগপূর্ণ, ঝড়ো হাওয়া বইছিল। ঢেউয়ের তোড়ে তাদের ট্রলারটি হাওরে ভাসছিল।

এসময় ট্রলারের মাঝি তার পরিচিতদের কাছে ফোনে সাহায্য চাইলেও দূর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ায় কেউ সাহায্য করার জন্য আসতে রাজী হয়নি। দূরবর্তী কিছু মাছ ধরার নৌকার দৃষ্টি আকর্ষনের জন্য তারা অনেক ডাকাডাকি করে কিন্তু কেউ এগিয়ে আসেনি। তখন তুষার নামের এক শিক্ষার্থী ৯৯৯-এ ফোন করে তাদের উদ্ধারের অনুরোধ জানায়।

৯৯৯ তাৎক্ষণিকভাবে কলারের সঙ্গে কিশোরগঞ্জ জেলা পুলিশের এএসপি হেডকোয়ার্টার, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিঠামইন থানা ও চামটাঘাট নৌ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জের সঙ্গে কথা বলিয়ে দেন। সৌভাগ্যক্রমে চামটাঘাট ফাঁড়ির একটি নৌ টহল দল ঘটনাস্থলের কাছাকাছি ছিল। কিন্তু শিক্ষার্থীদের অবস্থান চিহ্নিত করতে দূর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ায় পুলিশের দলটিকে বেশ বেগ পেতে হয়েছিল।

টহল দলটির উপপরিদর্শক (এসআই) নাজমুল ইসলাম ৯৯৯’এ ফোনে জানায়, আবহাওয়া খারাপ থাকায় তারা নিজেরাও ঝুঁকির মধ্যে আছেন। ঘণ্টাখানেক খোঁজাখুঁজির পর অবশেষে শিক্ষার্থীদের অবস্থান চিহ্নিত করা সম্ভব হয় এবং তাদেরকে উদ্ধার করে ঘাটে পৌঁছে দেওয়া হয়।