ইভটিজিংয়ের শিকার চবি ছাত্রী, ৩ কিশোর আটক


CU Correspondent | Published: 2022-04-19 20:39:42 BdST | Updated: 2022-06-29 06:11:40 BdST

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) এক ছাত্রীকে ইভটিজিং করায় স্থানীয় ৩ কিশোরকে আটক করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী। পরে তাদেরকে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়।

সোমবার (১৮ এপ্রিল) রাত ৮টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের জিরো পয়েন্ট এলাকার ডাচ্ বাংলা ব্যাংক বুথের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে কর্তব্যরত পুলিশ ইনচার্জ মহিউদ্দিন সুমন বিষয়টি জানিয়েছেন।

ভুক্তভোগী ওই ছাত্রী বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি বিভাগের ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী।

জানা যায়, ইভটিজিংয়ের ঘটনার সঙ্গে ৬ কিশোর জড়িত। এদের মধ্যে ২ জনকে তাৎক্ষণিক আটক করে বিশ্ববিদ্যালয়ের ফরেস্ট্রি অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্সেস বিভাগের ২০১৬-২০১৭ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী আমানউল্লাহ এবং পরে আরও একজনকে আটক করা হয়।

ঘটনায় জড়িত ৬ কিশোররা হলেন— মো. সোলেমান মিয়ার ছেলে মো. মিরাজ (১৪) ও মো. মিনহাজ (১২), মো. লোকমান মিয়ার ছেলে তাসিব উদ্দিন (১৪), মো. বাবুল মিয়ার ছেলে মো. সানিম (১৪), তাসকিন (২০) ও অজ্ঞাত একজন। তারা প্রত্যেকেই বিশ্ববিদ্যালয়ের রেলগেইট এলাকার বাসিন্দা।

ঘটনার বর্ণনা দিয়ে আমানউল্লাহ বলেন, ‘মোটরসাইকেল নিয়ে শহীদ মিনারে যাওয়ার পথে ডাচ্ বাংলা ব্যাংক বুথের দিকে চিল্লাচিল্লির আওয়াজ শুনতে পাই। এরপর দেখি সিএনজিচালিত অটোরিকশার ভেতর থেকে কয়েকজন ছেলে একটা মেয়েকে টিজ করতেছে। আমি যখন বাইক নিয়ে সেখানে গেলাম, ওরা অটোরিকশা নিয়ে পালাচ্ছিল। পরে তাদের ২ জনকে ধরতে পারি আর বাকিরা পালিয়ে যায়। এরপর তাদেরকে পুলিশের হাতে তুলে দেই। পরে একজনকে আটক করে পুলিশ।’

পুলিশ ইনচার্জ মহিউদ্দিন সুমন জানান, আগামীকাল দুপুর ১টায় অভিভাবকসহ জড়িতদেরকে প্রক্টর অফিসে উপস্থিত হয়ে মুচলেকা দিতে বলা হয়েছে। নয়তো তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর ড. শহিদুল ইসলাম জানান, ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।