অতীশ দীপঙ্কর ইউনিভার্সিটির স্থায়ী ক্যাম্পাসের স্বীকৃতি: আনন্দ শোভাযাত্রা


Dhaka | Published: 2021-11-06 00:15:40 BdST | Updated: 2021-12-04 06:45:26 BdST

অতীশ দীপঙ্কর ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি এর স্থায়ী সনদ প্রাপ্তিতে শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সমন্বয়ে এক বর্ণাঢ্য আনন্দ শোভাযাত্রা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস থেকে শুরু করে সোনারগাঁও জনপদ রোড, শাহ মাখদুম রোড ও উত্তরা পাসপোর্ট অফিস ঘুরে ক্যাম্পাসে ফিরে আসে।

পাঁচ নভেম্বর ২০২১ তারিখ সকাল ১০:০০ ঘটিকায় এ কর্মসূচি পালিত হয়।

নবীন বরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে হাফিজুর রহমান খান, চেয়ারম্যান, বরেন্দ্র ইউনিভার্সিটি ট্রাস্ট ও চেয়ারম্যান, রানার গ্রæপ, বিশেষ অতিথি হিসেবে প্রিয়াংকা গ্রæপের চেয়ারম্যান জনাব সাইদুর রহমান সজল এবং সম্মানিত অতিথি হিসেবে জনাব মোঃ লিয়াকত আলী সিকদার, চেয়ারম্যান, বোর্ড অব ট্রাস্টিজ, অতীশ দীপঙ্কর ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. রফিক উদ্দিন আহমেদ। স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন রেজিস্ট্রার জনাব মোঃ আব্দুল কাইউম সরদার। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচিতি শিক্ষার্থীদের মাঝে তুলে ধরেন।

প্রধান অতিথি হাফিজুর রহমান খান স্থাযী সনদ প্রাপ্তি সম্পর্কে আলোচনাকালে তিনি অতীশ দীপঙ্কর ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি’র বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান জনাব মোঃ লিয়াকত আলী সিকদার এঁর যোগ্য নেতৃত্বের ভ‚য়ষী প্রশংসা করেন। ১০৮টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে ৫টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে স্থান করে নেওয়ার এই গৌরব অর্জন করায় ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। মুজিব বর্ষে ডিজিটাল বাংলাদেশের এই অর্জন শিক্ষক, শিক্ষার্থী এবং কর্মকর্তাদের উজ্জীবিত করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

মোঃ লিয়াকত আলী সিকদার অত্র বিশ্ববিদ্যালয়কে শিক্ষার জন্য বেছে নেওয়ায় শিক্ষার্থী ও অবিভাবকদেরকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। যুগের চাহিদা অনুযায়ী নিজেদেরকে যোগ্য করে গড়ে তোলার আহŸান জানান। বিশ্ববিদ্যালয়ের বোর্ড অব ট্রাস্টিজসহ সকল শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের অবদান শ্রদ্ধার সাথে স্মরন করেন এবং ধন্যবাদ ও অভিনন্দন জানান।

সভাপতির বক্তব্যে প্রফেসর ড. রফিক উদ্দিন আহমেদ বলেন উচ্চ শিক্ষার স্তরে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে ডিসিপ্লিন ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নির্বাচন। নবীন শিক্ষার্থীরা সঠিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নির্বাচন করেছে বলে আশ্বস্থ করেন। তিনি বলেন ৫ম বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে স্থায়ী সনদ প্রাপ্ত হলেও অত্র বিশ্ববিদ্যালয় গুনগত শিক্ষার ক্ষেত্রে প্রথম স্থান অর্জন করার যোগ্যতা আছে। নবীন শিক্ষার্থীদের সর্বাত্বক সহোযোগিতা প্রদানের আশাবাদ ব্যক্ত করেন। অনুষ্ঠানে সবাইকে ধন্যবাদ জানান।

অনুষ্ঠানে বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সম্মানিত সদস্য প্রফেসর ড. এম শাহীন খান, জনাব সৈয়দ মোহাম্মদ হেমায়েত হোসেন, জনাব গোলাম সারোয়ার কবির, জনাব মোঃ জোনায়েত আহমেদ, জনাব মোঃ কামরুজ্জামান, জনাব সুলতানা পাভীন, জনাব সেলিনা বেগম, বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার এ.কে.এম দেলোয়ার হোসেন, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক জনাব মোঃ কামরান চৌধুরী, আই.এম.সি এ্যাডভাইজর জনাব শাহারুল আলম মিনা, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ফার্মেসী বিভাগের অধ্যাপক ড. মোঃ আসলাম হোসেন, বাংলাদেশ টেক্সাইল বিশ্ববিদ্যালয়ের ডীন অধ্যাপক ড. শেখ মোঃ মমিনুল আলম, শের-ই-বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. মির্জা হাসানুজ্জামান, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মোঃ নাসির উদ্দিন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রোবোটিক এন্ড মেকাট্রোনিক বিভাগের চেয়ারম্যান ড. শামীম দেওয়ান, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড

ইঞ্জিানয়ারিং বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক কাজী জাহিদুর রহমান, বাংলাদেশ এটোমিক এনার্জি কমিশনের প্রিন্সিপাল সান্টিফিক অফিসার ড. আব্দুল্লাহ আল মামুনসহ বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।