শেকৃবির হল থেকে ৬ মাদকসেবী আটক


Desk report | Published: 2022-09-24 12:27:00 BdST | Updated: 2022-12-03 05:57:59 BdST

শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে নিয়মিত চলছে মাদকবিরোধী অভিযান। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডি এবং হল প্রশাসনের যৌথ উদ্যোগে অভিযান চালিয়ে পরপর দুইদিনে মাদকের আসর থেকে ৬ মাদকসেবীকে আটক করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শেরেবাংলা হলের ছাদ থেকে ৪ জনকে গাঁজা সহ আটক করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

হল প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, আটক ৪ জনের দুই জন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র রাহাত আফনান (১১ ব্যাচ) ও অভিজিৎ চৌধুরী (১১ ব্যাচ)। এদের বর্তমানে ছাত্রত্ব নেই। বাকি দুইজন দিপক দিপ্ত ও পার্থ সাহা, তারা অভিজিতের বন্ধু তবে বহিরাগত। আটক ৪ জনকে পুলিশে দেওয়া হয়েছে।

আটক রাহাত আফনানসহ অন্য মাদকাসক্তরা জানায়, মাদক সেবনের সময় তাদের সাথে কৃষ্ণ কৃপা আনন্দ (১১ব্যাচ) ছিলেন। কৃষ্ণ কৃপা আনন্দ বিশ্ববিদ্যালয়ের অছাত্র হয়েও সিট দখল করে রয়েছেন। নিজেরা মাদক সেবন, বিক্রি ও মাদকাসক্তদেরকে আশ্রয় দিয়ে আসছেন। এছাড়াও কবি কাজী নজরুল ইসলাম হলের ২১৮ নং রুম ও নবাব সিরাজুদ্দৌলা হলের ৭১৫নং রুমে নিয়মিত বিভিন্ন ধরনের মাদকের আসর বসে।

বুধবার (২১ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাতে নবাব সিরাজউদ্দৌলা হলের সিঁড়িতে গাজা সেবনরত অবস্থায় দুই শিক্ষার্থীকে আটক করা হয়। আটক দুই শিক্ষার্থী হলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যানিমেল সায়েন্স অ্যান্ড ভেটেরিনারি মেডিসিন অনুষদের আব্দুল্লাহ আল জুবায়ের (১৭ ব্যাচ) এবং মর্তুজা আল মিমুন (১৮তম ব্যাচ)।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর সহযোগী অধ্যাপক ড. হারুন-উর-রশীদ বলেন, শেরেবাংলা হল থেকে আটক করা ৪জনকে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছি। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মাদকমুক্ত রাখা এবং মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স। আমরা সেই লক্ষ্যে কাজ করছি। মাদকের বিরুদ্ধে আমাদের অভিযান চলছে এবং চলবে।

নবাব সিরাজুদ্দৌলা হলের আটক শিক্ষার্থীদের প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘ওই দুই শিক্ষার্থী এর আগেও মাদকসহ ধরা পড়েছে। হল থেকে তাদের বহিষ্কারের বিষয়ে প্রভোস্ট তার সিদ্ধান্ত দেবেন। আমরা শৃঙ্খলা কমিটি এ বিষয়ে পরবর্তী পদক্ষেপ নেবো। তবে এবার এদের ছাড় পাওয়ার কোনো সুযোগ নেই।’

শেরেবাংলা নগর থানার উপ পুলিশ পরিদর্শক জালাল উদ্দীন বলেন, তাদের কাছে ২৫ গ্রাম গাজা পাওয়া গিয়েছে। আটক ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। মামলা নম্বর ৪০/৯/২২। আইন অনুযায়ী তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।