বেরোবিতে সমাবর্তন না হওয়ায় শিক্ষার্থীরা পাচ্ছেন না মূল সনদ


Desk report | Published: 2022-11-23 15:46:51 BdST | Updated: 2022-12-03 05:31:12 BdST

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে (বেরোবি) প্রতিষ্ঠার ১৫ বছর পার হলেও এখনও হয়নি কোনো সমাবর্তন। বিশ্ববিদ্যালয়টি থেকে ৯টি ব্যাচ স্নাতকোত্তর ও ১০টি ব্যাচ স্নাতক পাশ করলেও তারা কেউই সমাবর্তনের স্বাদ পাননি। ফলে লেখাপড়া শেষ করে মূল সনদ ছাড়াই এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা যুক্ত হচ্ছেন কর্মক্ষেত্রে।

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার এতো বছরেও সমাবর্তন আয়োজন না করায় শিক্ষার্থীদের সাময়িক সনদপত্র নিয়েই ক্যাম্পাস ছাড়তে হয়। এদিকে মূল সনদ না থাকায় উচ্চ শিক্ষার জন্য বিদেশগামী শিক্ষার্থীরাও জটিলতায় পড়েন।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরে সমাবর্তনের জন্য দাবি জানিয়ে আসলেও তা আমলে নিচ্ছে না বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

বাংলা বিভাগের সাবেক শিক্ষার্থী আনিছুর রহমান বলেন, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার ১৫ বছরেও সমাবর্তন না হওয়া বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের উদাসীনতা প্রকাশ করে।

পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের সাবেক শিক্ষার্থী জাকির হোসেন বলেন, অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ে একাধিকবার সমাবর্তন হলেও আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ে এখনো আয়োজন করা হয়নি। আমাদেরও ইচ্ছা ছিল সমাবর্তনে সকলে একসঙ্গে হবো, গাউন পরবো দিনটি উৎযাপন করবো। তা এখনো হয়নি।

 

লোকপ্রশাসন বিভাগের সাবেক শিক্ষার্থী মাহফুজুল ইসলাম বকুল বলেন, সমাবর্তন হলো প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের আনন্দঘন বিদায়। এটি শিক্ষার্থীদের প্রাপ্য। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের উচিত দ্রুত আয়োজন করা।

এ বিষয়ে বেরোবি সাবেক শিক্ষার্থী ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট লোকমান হোসেন লিটু বলেন, প্রতিষ্ঠার দেড় দশক পেরিয়ে গেলেও প্রথম সমাবর্তন না হওয়া দুঃখজনক ও হতাশার। যত দ্রুত সম্ভব সমাবর্তন আয়োজনের জন্য কর্তৃপক্ষকে আহ্বান জানাই।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. হাসিবুর রশীদ বলেন, সমাবর্তন শিক্ষার্থীদের জন্য একটি আনন্দের ও সম্মানের বিষয়। তবে আমি চেষ্টা করবো সমাবর্তন আয়োজন করার।

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান (অতিরিক্ত দায়িত্ব) অধ্যাপক ড. দিল আফরোজা বেগম বলেন, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মূল সার্টিফিকেট দিতে গেলে অবশ্যই সমাবর্তন করতে হবে। এ বিষয়ে উপাচার্যের সাথে কথা বলবো।

প্রসঙ্গত, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে সমাবর্তন অনুষ্ঠিত না হলেও ২০১৭-১৮ ও ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীদের নিয়ে দুবার উদ্বোধনী সমাবর্তনের আয়োজন করা হয়। এ সময় নবীন শিক্ষার্থীদের বরণ করে নেয়া হয়েছিল।