ঢাবির ছাত্রী হলগুলোতে নেত্রী হতে চান যারা


Dhaka | Published: 2022-01-18 05:14:49 BdST | Updated: 2022-05-28 17:42:03 BdST

পদ প্রত্যাশীদের ‘দাবির মুখে’ আবাসিক হলগুলোতে কমিটি গঠনের লক্ষ্য আগামী ৩০ জানুয়ারি হল সম্মেলনের নতুন তারিখ ঘোষণা করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) ছাত্রলীগ।

১৮টি হলে নেতা হওয়ার জন্য ৩৩০ জন ইতিমধ্যেই নিজেদের বায়োডাটা জমা দিয়েছেন। আজ দেখে নেয়া যাক মেয়েদের হলগুলোতে কারা নেত্রী হতে চান। এখান থেকেই ঘোষণা করা হবে বিভিন্ন ছাত্রী হলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নাম। 

সুফিয়া কামাল হল-লাবিসা রিমা- জয় / পূজা কর্মকার, সনজিত চন্দ্র দাসের অনুযায়ী। কানিজ মীম, মিতালী মন্ডল- সাদ্দামের অনুসারী। 

শামসুন্নাহার হল- খাদিজা উর্মি- জয়ের অনুসারী / নুসরাত রুবাইয়াৎ নীলা- লেখকের অনুসারী ইরা-সনজিত/ শেহের জাহান, সাবরিনা তাবাসসুম নিথিয়া-সাদ্দামের অনুসারী। 

রোকেয়া হল- মাসুমা আক্তার ,সিতিমা সেন, মোহসিনা খাতুন মাইশা- জয়ের অনুসারী/ ফাল্গুনী দাস তন্বী -লেখকের অনুসারী। পৃথা অন্তরা দাস, মাঈশা বাসার সুমাইয়া -সনজিত/ আতিকা বিনতে হোসাইন, মজিদা নাসরিন মমো-সাদ্দামের অনুসারী। 

বঙ্গমাতা হল- তানিয়া আক্তার তাপসী, আফরোজা ইমু- জয়ের অনুসারী / সানজিনা আক্তার ,রুবাইয়া রুবা- লেখকের অনুসারী এবং পাপিয়া আক্তার-সনজিত/ কোহিনূর আক্তার রাখি- সাদ্দামের অনুসারী। 

কুয়েত-মৈত্রী হল- হাওয়া আক্তার আখিঁ- সনজিতের অনুসারী এবং রাজিয়া সুলতানা কথা- সাদ্দামের অনুসারী। এই হলে আল নাহিয়ান খান জয় ও লেখক ভট্টাচার্যের উল্লেখযোগ্য কোন পদপ্রার্থী নেই।

সর্বশেষ ২০১৬ সালের ১৩ ডিসেম্বর এক বছরের জন্য ১৮টি হল শাখার কমিটি ঘোষণা করে ছাত্রলীগ। মাঝে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখাসহ কেন্দ্রীয় কমিটির রদবদল হলেও প্রায় পাঁচ বছর হল কমিটি হয়নি।

২০১৮ সালের ২৯ এপ্রিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সম্মেলনের মাধ্যমে একই বছর ৩১ জুলাই সনজিত চন্দ্র দাস সভাপতি ও সাদ্দাম হোসেন সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন।