পাস নম্বর ৩৫ পাননি ঢাবি ‘খ’ ইউনিটের ৯০ শতাংশ শিক্ষার্থী


DU Correspondent | Published: 2022-06-27 16:25:22 BdST | Updated: 2022-08-14 21:07:09 BdST

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) 'খ' ইউনিটে ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি পরীক্ষায় পাস নম্বর ৩৫ পাননি ৯০ শতাংশ শিক্ষার্থী। পাসের জন্য এমসিকিউ ও লিখিত—দুই অংশ মিলিয়ে ৩৫ নম্বর পেতে হয়।

ঢাবির তথ্য অনুযায়ী, ভর্তি পরীক্ষায় এমসিকিউ অংশে ৬০ নম্বর ও লিখিত অংশে ছিল ৪০ নম্বর। এর মধ্যে এমসিকিউ অংশে বাংলায় ১৫, ইংরেজিতে ১৫ ও সাধারণ জ্ঞানে ৩০ নম্বর। পাসের জন্য বাংলায় ৫, ইংরেজিতে ৫ ও সাধারণ জ্ঞানে ১৫-সহ মোট ২৪ নম্বর পেতে হবে।

লিখিত অংশে বাংলায় ২০ ও ইংরেজিতে ২০ নম্বর। পাসের জন্য বাংলায় ৫ ও ইংরেজিতে ৫-সহ মোট ১১ নম্বর পেতে হবে। অর্থাৎ পাস করতে এই দুই অংশ মিলিয়ে মোট ৩৫ নম্বর পেতে হবে।

ভর্তি পরীক্ষায় ৯০ শতাংশ শিক্ষার্থী পাস করতে না পারার বিষয়ে ঢাবির পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. কামরুল হাসান মামুন বলেন, 'ভর্তি পরীক্ষায় যারা ভালো করবে, তারাই চান্স পাবে। এখন এত শিক্ষার্থী খারাপ করার একটা কারণ হলো আমাদের শিক্ষার যে মান হওয়া উচিত, তা যে নেই, সেটারই প্রমাণ। এখন সার্টিফিকেট-ভিত্তিক পড়াশোনা হয়ে যাচ্ছে। শিক্ষার মান সেভাবে বজায় থাকছে না। ৯০ শতাংশ শিক্ষার্থী ফেল করা এরই প্রতিফলন। অনেক শিক্ষার্থী এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পাচ্ছে, কিন্তু শিক্ষার মানের উন্নয়ন তো হচ্ছে না।'

উল্লেখ্য, গত ৪ জুন ঢাবির 'খ' ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এতে এক হাজার ৭৮৮টি আসনের বিপরীতে আবেদন করেছিলেন ৫৮ হাজার ৫৭৩ জন শিক্ষার্থী। পরীক্ষায় অংশ নেন ৫৬ হাজার ৯৭২ জন শিক্ষার্থী। পাসে করেছেন ৫ হাজার ৬২২ জন। অংশ নেওয়া পরীক্ষার্থী বিবেচনায় পাসের হার ৯ দশমিক ৮৭ শতাংশ। আর পাস করতে পারেননি ৯০ দশমিক ১৩ শতাংশ শিক্ষার্থী।