বিকেলে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভিসি নিয়োগ, রাতে স্থগিত


Desk report | Published: 2024-04-05 12:07:45 BdST | Updated: 2024-05-29 09:44:19 BdST

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ মিজানুর রহমানকে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য নিয়োগ দেওয়ার মাত্র কয়েক ঘণ্টার মাথায় তার নিয়োগ স্থগিত করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৪ এপ্রিল) ড. মোহাম্মদ মিজানুর রহমানকে আগামী ৪ বছরের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়টির এই পদে দায়িত্ব দেওয়া হয়। কিন্তু কয়েক ঘণ্টা পরেই তার নিয়োগ স্থগিতের প্রজ্ঞাপন জারি হয়।

মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সিনিয়র সহকারী সচিব শতরূপা তালুকদার স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন উপ-উপাচার্য হিসেবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফলিত রসায়ন ও কেমিকৌশল বিভাগের অধ্যাপক এবং লেদার ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজি ইনস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক মিজানুরের নিয়োগ আদেশ স্থগিত করা হলো।

ঠিক কী কারণে তার নিয়োগ স্থগিত হয়েছে সেই ব্যাপারে আনুষ্ঠানিক কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি। তবে এর আগে ড. মিজানুর রহমানের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ করেছিলেন তার সহকর্মীরা। এই অভিযোগের জন্য তার নিয়োগ স্থগিত হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

নিয়োগের প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছিল, রাষ্ট্রপতি ও চ্যান্সেলরের অনুমোদনক্রমে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় আইন ১৯৯২-এর ১৩ (১) ধারা অনুযায়ী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফলিত রসায়ন ও কেমিকৌশল বিভাগের অধ্যাপক ও লেদার ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজি ইনস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ মিজানুর রহমানকে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভাইস-চ্যান্সেলর নিয়োগ করা হয়েছে।

এই নিয়োগে কিছু শর্তও দেওয়া হয়। শর্তগুলো হলো— প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর হিসেবে তার নিয়োগের মেয়াদ যোগদানের তারিখ থেকে ৪ বছর হবে, এই পদে তিনি তার বর্তমান পদের সমপরিমাণ বেতন-ভাতা পাবেন, তিনি বিধি অনুযায়ী পদ সংশ্লিষ্ট অন্যান্য সুবিধা ভোগ করবেন এবং সার্বক্ষণিকভাবে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে অবস্থান করবেন।

তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের সংবিধি ও আইন দ্বারা নির্ধারিত ক্ষমতা প্রয়োগ ও দায়িত্ব পালন করবেন। রাষ্ট্রপতি ও চ্যান্সেলর প্রয়োজন মনে করলে যেকোনো সময় এ নিয়োগ বাতিল করতে পারবেন। জনস্বার্থে এ আদেশ জারি করা হয়েছে বলেও জানানো হয় প্রজ্ঞাপনে।