ছাত্রকে দিয়ে ছাত্রীর গালে চড় মারানোর অভিযোগ কলেজশিক্ষকের বিরুদ্ধে


Desk report | Published: 2022-04-09 22:51:21 BdST | Updated: 2022-05-28 15:53:44 BdST

ক্লাসরুমে প্রশ্নের ভুল উত্তর দেওয়ায় ছাত্রীর গালে এক ছাত্রকে দিয়ে চড় মারানোর অভিযোগ উঠেছে এক কলেজশিক্ষকের বিরুদ্ধে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুরের ফরদাবাদ গ্রামের ড. রওশন আলম কলেজে গত ৪ এপ্রিল সকালে এ ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত শিক্ষক ওই কলেজের পদার্থবিদ্যা বিভাগের প্রভাষক।

এ ঘটনা তদন্তে কলেজ কর্তৃপক্ষ ৫ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করেছে।

তদন্ত কমিটির প্রধান ও কলেজ পরিচালনা পর্ষদের সদস্য দেলোয়ার হোসেন বলেন, 'ঘটনার ২ দিন পর গত ৬ এপ্রিল এই নিয়ে কলেজে একটি সভা করা হয়। প্রাথমিকভাবে কলেজ কর্তৃপক্ষের কাছে ঘটনাটি সত্য বলে প্রতীয়মান হয়েছে। তদন্তের জন্য ১৫ কার্যদিবস সময় বেঁধে দেওয়া হয়েছে। তদন্তে ঘটনার সত্যতা প্রমাণিত হলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।'

এ ছাড়া, ঘটনার জন্য ওই ছাত্রীর বাবার কাছে দুঃখ প্রকাশ করেছে কলেজ কর্তৃপক্ষ।

কলেজ সূত্রে জানা গেছে, গত ৪ এপ্রিল সকালে দ্বাদশ শ্রেণির পদার্থবিদ্যা বিষয়ের ক্লাসে ওই ছাত্রী একটি প্রশ্নের ভুল উত্তর দিয়েছিল। এতে সেই প্রভাষক ক্ষুব্ধ হয়ে ওই ছাত্রীকে তার নিজ হাতেই নিজের গালে চড় মারতে বলেন। ৩ বার বলার পরেও ওই ছাত্রী তা না করায়, পাশে বসা আরেক ছাত্রীকে চড় দিতে বলেন তিনি। কিন্তু পাশের ছাত্রীও এতে রাজি না হওয়ায় একই ক্লাসের এক ছাত্রকে চড় দিতে নির্দেশ দেন প্রভাষক। পরে শিক্ষকের নির্দেশে ওই ছাত্রীর গালে চড় দেয় ছাত্র।

জানতে চাইলে অভিযুক্ত প্রভাষক বলেন, 'শ্রেণিকক্ষে আমি শিক্ষার্থীদের মারধর করার পক্ষে নই। সেদিন আমার উদ্দেশ্য খারাপ ছিল না। ইন্টারমিডিয়েট পড়ুয়া একজন শিক্ষার্থী কোনটা গুণ আর কোনটা দশমিক সেটার পার্থক্য জানবে না, তা হতে পারে না। তা ছাড়া এর আগেও আমি ওই ছাত্রীকে একই ভুল ধরিয়ে দিয়েছিলাম।'

'নিজের গালে নিজে চড় দিলে এটি মনে থাকবে- এমন ধারণা থেকে আমি তাকে এটি করতে বলেছিলাম। পরে ছেলেটা নিজে উৎসাহী হয়ে ওই ছাত্রীকে চড় দিয়েছে', যোগ করেন তিনি।

কলেজের অধ্যক্ষ রফিকুল ইসলাম বলেন, 'শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে ঘটনাটি জানার পর তাৎক্ষণিক সভা করা হয়েছে। ওই সভায় উপস্থিত ছাত্রীর বাবার কাছে কলেজ কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে আমরা দুঃখ প্রকাশ করেছি। এরপর ঘটনার সত্যতা যাচাই করতে কমিটি গঠন করা হয়েছে।'