চবিতে সেকেন্ড টাইমের সুযোগ, কর্তন করা হবে ৫ নম্বর


শেখ আব্দুল্লাহ ইয়াছিন চট্টগ্রাম | Published: 2023-03-15 18:17:35 BdST | Updated: 2024-04-21 20:33:10 BdST

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষার আবেদন করা যাবে আগামী ২০ মার্চ থেকে। এবার বিশ্ববিদ্যালয়ে দ্বিতীয়বার ভর্তি পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ রাখা হয়েছে। তবে দ্বিতীয় বার ভর্তি প্রত্যাশিদের ক্ষেত্রে মোট নম্বর হতে ৫ নম্বর কর্তন করা হবে। এছাড়া এবারের ভর্তি পরীক্ষায় বেশ কিছু পরিবর্তন আনা হয়েছে।  ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদে ভর্তির জন্য বিজ্ঞান, মানবিক, বাণিজ্য  বিভাগের শিক্ষার্থীদের সি ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষা দিতে হবে। ডি ইউনিটে পরীক্ষা দিয়ে বাণিজ্য অনুষদের বিষয়গুলোতে ভর্তি হওয়া যাবে না। ডি ইউনিটে থাকবে আইন ও সমাজবিজ্ঞান অনুষদভুক্ত বিষয়গুলো। বিষয়টি নিশ্চিত করেছে ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ডিন হেলাল নিজামী।

আসন্ন ২০২২-২৩শিক্ষাবর্ষের শুরু হতে যাওয়া ভর্তি পরীক্ষা ঢাবির মত বিভাগীয় শহরে অনুষ্ঠিত হওয়ার গুঞ্জন শোনা গেলেও ভর্তি পরীক্ষা বিভাগীয় শহরে অনুষ্ঠিত হওয়ার  কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি, ভর্তি পরীক্ষা চবি ক্যাম্পাসে-ই হবে। এর বাইরে হাটহাজারী কলেজে পরীক্ষা হতে পারে বলে জানিয়েছেন  ইঞ্জেনিয়ারিং অনুষদের ডিন ড. রাশেদ মোস্তফা। 

উল্লেখ্য  গত বছরের মতো এবারও ৪টি ইউনিট ও ২টি উপ–ইউনিটের মাধ্যমে ভর্তি কার্যক্রম সম্পন্ন হবে। এবারও ৪৮টি বিভাগ ও ৬টি ইনস্টিটিউটে ৪ হাজার ৯২৬টি আসনের জন্য শিক্ষার্থীরা আবেদন করতে পারবেন। এর মধ্যে সাধারণ আসন ৪ হাজার ১৮৯টি ও কোটা ৭৩৭টি। ভর্তির আবেদনের জন্য ইউনিট ও উপ–ইউনিট প্রতি একজন শিক্ষার্থীকে ১০০টা বাড়তি গুনতে হবে অর্থাৎ এবার আবেদন ফি নির্ধারণ করা হয়েছে মোট ৯৫০ টাকা। এ ছাড়া পরীক্ষা শুরু হবে ১৬ মে, শেষ হবে ২৫ মে। এবার মোট ১২০নাম্বারে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

জানতে চাইলে বিজ্ঞান অনুষদের ডিন মোহাম্মদ নাসিম হাসান  বলেন গত বছরের চেয়ে এবার আবেদনের যোগ্যতায় সামান্য পরিবর্তন আনা হয়েছে।

‘এ’ ইউনিটের অধীনে রয়েছে চারটি অনুষদ। এগুলো হলো বিজ্ঞান, জীববিজ্ঞান, ইঞ্জিনিয়ারিং ও মেরিন সায়েন্সেস অ্যান্ড ফিশারিজ অনুষদ। চার অনুষদে মোট সাধারণ আসন ১ হাজার ২১৪টি। আবেদনের ন্যূনতম যোগ্যতা মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক (চতুর্থ বিষয়সহ) মিলিয়ে মোট জিপিএ ৮.২৫। গত বছর ছিল ৮.০০। মাধ্যমিকে ন্যূনতম ৪ ও উচ্চমাধ্যমিকে ৪ থাকতে হবে।

কলা ও মানববিদ্যা অনুষদভুক্ত ‘বি’ ইউনিটে উচ্চমাধ্যমিকে উত্তীর্ণ সব গ্রুপের শিক্ষার্থীরা আবেদন করতে পারবেন। মানবিক বিভাগ থেকে আসা শিক্ষার্থীদের আবেদনের ন্যূনতম যোগ্যতা মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিকে চতুর্থ বিষয়সহ মোট জিপিএ ৭.৫০। বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের ন্যূনতম জিপিএ লাগবে ৮.০০। এ ছাড়া ব্যবসায় শিক্ষা শাখার শিক্ষার্থীদের জন্যও লাগবে জিপিএ ৮.০০। এই ইউনিটে বিভাগ রয়েছে মোট ১৩টি। ‘বি’ ইউনিটে (নাট্যকলা, চারুকলা ও সংগীত বিভাগ ছাড়া) মোট সাধারণ আসন ১ হাজার ২২১টি। সংগীত, চারুকলা ও নাট্যকলা বিভাগে ভর্তি পরীক্ষা দিতে আগ্রহী শিক্ষার্থীদের আলাদাভাবে বি-১ ইউনিটে আবেদন করতে হবে। এই উপ–ইউনিটে মোট সাধারণ আসন ১২৫টি।

অন্যদিকে ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদভুক্ত ‘সি’ ইউনিটে মোট সাধারণ আসন ৪৪২টি। এই ইউনিটে আবেদনের ন্যূনতম যোগ্যতা থাকতে হবে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিকে (চতুর্থ বিষয়সহ) মোট জিপিএ ৮.০০। এখানে বিভাগ রয়েছে ছয়টি।

সব গ্রুপের শিক্ষার্থীরাই ‘ডি’ ইউনিটে পরীক্ষা দিতে পারবেন। এখানে সমাজবিজ্ঞান অনুষদের ৯টি বিভাগ, আইন অনুষদের অধীনে থাকা আইন বিভাগ রয়েছে।

‘ডি’ ইউনিটে আবেদনের যোগ্যতা হিসেবে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিকে (চতুর্থ বিষয়সহ) মোট জিপিএ ৭.৫০ থাকতে হবে। এ ছাড়া শিক্ষা অনুষদভুক্ত ডি-১ উপ–ইউনিটে আগ্রহী শিক্ষার্থীদের আলাদাভাবে আবেদন করতে হবে।