চবি ছাত্রলীগ সভাপতিকে ক্যাম্পাসে অবাঞ্চিত ঘোষণা


স্টাফ করেসপনডেন্ট | Published: 2023-06-09 02:05:08 BdST | Updated: 2024-06-14 14:06:38 BdST

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি রেজাউল হক রুবেলকে ক্যাম্পাসে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেছেন সংগঠনের একাংশের নেতাকর্মীরা, যারা তার সঙ্গে একইগ্রুপে যুক্ত হিসেবে পরিচিত। উপ-দফতর সম্পাদক মোহাম্মদ রমজান হোসাইনকে কুপিয়ে আহত করা নিয়ে একটি কলরেকর্ড ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ার পর সতীর্থরা তার বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছেন।

ভাইরাল হওয়া কলরেকর্ডটিতে রুবেলকে বলতে শোনা যায়, ‘রমজাইন্নারে মারতে হইছে আমার, আমারে চিটাং (চিটাগং) ভার্সিটির সবাই ভয় পায়, তুই শুধু আমার পাশে থাক, বাকি কাজ অটো হয়ে যাবে। রমজাইন্না অনেক লাফাইছে না? এখন ওই হিসেবে পড়ে গেছে। সবকিছু মুখে বলতে হবে কেন? আমারে একটু দাঁড়াইতে দে। দেখবি অনেকে অনেক হিসাবের মধ্যে হয়তো পায়ে এসে পড়বে, নয়তো নিজের মতো নিজের হিসাব মিলাই নিবে।‘

জানা গেছে, রুবেলের নিজের মুখে রমজানকে ‘শায়েস্তা’ করার কথা শুনে ক্ষুব্ধ হয়ে নিজ গ্রুপের নেতাকর্মীরা তাকে ক্যাম্পাসে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেন। রাতে তারা রুবেলের বিরুদ্ধে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভও করেন।

জানতে চাইলে চবি ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মির্জা খবির সাদাফ বলেন, ‘রমজানকে আহত করার বিষয়টি কলরেকর্ডে উনি (রেজাউল হক রুবেল) স্পষ্ট বলেছেন। একজন সভাপতির কাছ থেকে এ ধরনের আদর্শহীন কর্মকাণ্ড আমরা কখনো আশা করি না। এ ধরনের কর্মকাণ্ডের সঙ্গে সভাপতিসহ আরও যারা জড়িত আছে, তাদের বিষয়ে কেন্দ্রীয় নেতা ও আওয়ামী লীগের অভিভাবকদের জানাব।’

তিনি বলেন, ‘আসলে কমিটির মেয়াদ অনেকদিন হয়ে যাওয়ায় নেতাকর্মীদের প্রতি উনার দায়বদ্ধতা নেই। আমরা চাই, এই মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটি দ্রুততম সময়ের মধ্যে ভেঙে দেওয়া হোক।’

উপ-দফতর সম্পাদক মোহাম্মদ রমজান হোসাইনকে গত ১ জুন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপে সংঘর্ষের সময় কুপিয়ে আহত করা হয়। শাটল ট্রেনের বগিভিত্তিক ছাত্রলীগের উপগ্রুপ সিক্সটি নাইন ও সিএফসি’র নেতাকর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছিল।

সভাপতি রেজাউল হক রুবেল ও উপ-দফতর সম্পাদক রমজান হোসাইন উভয়ই সিএফসি গ্রুপের সঙ্গে জড়িত।

জানতে চাইলে রেজাউল হক রুবেল বলেন, ‘ওটা (কলরেকর্ড) সুপার এডিট করা। আমি বাবা-মার হজের কাজে ব্যস্ত ছিলাম। কয়েকজন ছেলেপেলে আমার বিরুদ্ধে এসব অপপ্রচার করছে।’

রেজাউল হক রুবেল ২০১৯ সালের ১৪ জুলাই থেকে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। গত মার্চে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে রুবেলের একটি ছবি ভাইরাল হয়। ছবিতে দেখা যায়, বিছানায় শুয়ে আছেন রুবেল। দুই পাশে বসে পা টিপছেন সংগঠনটির অপর দুই নেতা। গণমাধ্যমে প্রকাশিত তথ্যানুযায়ী, বিশ্ববিদ্যালয়ের শাহ আমানত হলের ৩১১ নম্বর কক্ষে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের উপ-কর্মসূচি ও পরিকল্পনাবিষয়ক সম্পাদক শামীম আজাদ এবং উপ-ক্রীড়া সম্পাদক শফিউল ইসলাম সভাপতি রেজাউল হক রুবেলের পা টিপছিলেন।

বিছানায় শুয়ে একই সংগঠনের দুই নেতাকে দিয়ে রুবেলের পা টেপানোর ছবি ফেসবুকে ভাইরাল হওয়ার জেরে গত ২২ মে তিনি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ছয় ছাত্রের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে আদালতে মামলা দায়ের করেন।