ঢাবি উপাচার্য

জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতি পূরণে স্বেচ্ছাসেবীদের ভূমিকা রাখতে হবে


DU Correspondent | Published: 2023-12-05 17:36:23 BdST | Updated: 2024-03-04 21:59:25 BdST

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল বলেছেন, বাংলাদেশ জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকিতে আছে। উপকূলীয় এলাকায় সাইক্লোনসহ বিভিন্ন ধরনের প্রাকৃতিক দুর্যোগ লেগেই থাকে। এসব দুর্যোগে স্বেচ্ছাসেবীরা মানুষের পাশে এগিয়ে আসে। গত বছর সিলেটে বড় ধরনের বন্যা হয়েছিল। সেখানে স্বেচ্ছাসেবীরা মানুষের ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে। জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে বাংলাদেশে যেসব ক্ষতি হচ্ছে সেসব পূরণে স্বেচ্ছাসেবীদেরকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে হবে।

মঙ্গলবার (৫ ডিসেম্বর) ভলেন্টারি সার্ভিস ওভারসিস ভিএসও-বাংলাদেশ এর আয়োজনে আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবী দিবস-২০২৩ উপলক্ষ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নওয়াব আলী সিনেট অডিটোরিয়ামে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে দেশের বিভিন্ন জেলার ২০ জন শ্রেষ্ঠ স্বেচ্ছাসেবী/ স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠানকে তাদের অনন্য স্বেচ্ছাসেবামূলক কাজের জন্য সম্মাননা দেওয়া হয়।

ঢাবি উপাচার্য বলেন, মানুষের জন্য ছাড় দেওয়ার মানসিকতাই হলো বড় স্বেচ্ছাসেবিতা। স্বেচ্ছাসেবামূলক কাজের মাধ্যমে যুবকদের জন্য ভবিষ্যতে সুন্দর একটি দেশ প্রস্তুত করে রাখতে হবে, দেশকে পরিবর্তন করতে হবে। অতীতে এ কাজের মাধ্যমে এদেশের স্বেচ্ছাসেবীরা অনেক মানুষের জীবন বাঁচিয়েছে। স্বেচ্ছাসেবীরা মানুষকে রক্ষার জন্য জীবন বাজি রেখে কাজ করেছে। বাংলাদেশে ২০ লাখ মানুষ স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে বিভিন্ন সেক্টরে কাজ করছে।

ভিএসও-বাংলাদেশ এর কান্ট্রি ডিরেক্টর খাবিরুল হক কামাল বলেন, বর্তমানে বাংলাদেশে ৫০ হাজার ‘ভিএসও স্বেচ্ছাসেবক’ কাজ করছে। ভবিষ্যতে সুন্দর দেশ গড়তে হলে স্বেচ্ছাসেবীদের এগিয়ে আসতে হবে। সব স্বেচ্ছাসেবক একত্রে কাজ করতে পারলে দেশকে একটি সমৃদ্ধির জায়গায় নেওয়া সম্ভব। যারা স্বেচ্ছাসেবীর কাজ করছে আমরা সব সময় তাদের প্রতি ইতিবাচকভাবে অনুপ্রেরণা দেওয়ার চেষ্টা করি।

তিনি বলেন, সরকার স্বেচ্ছাসেবকদের নানাভাবে সহযোগিতা করছে। আমরা আশাবাদী স্বেচ্ছাসেবীরা আরও কাজের সুবিধা পাবেন। টেকসই উন্নয়ন ও জলবায়ু পরিবর্তনের মোকাবিলা করার জন্য, আমাদের একসঙ্গে কাজ করতে হবে এবং এটাই কাজ করার উপযুক্ত সময়। আমরা বাংলাদেশকে টেকসই উন্নয়নশীল দেশ করতে চাই। সেলক্ষ্যে ভিএসও বাংলাদেশ কাজ করছে।

ব্রুনাইয়ের হাই কমিশনার হারিস ওথমান বলেন, স্বেচ্ছাসেবী হলো বিনা পারিশ্রমিকে কাজ করা যা সবাই করতে পারে না। স্বেচ্ছাসেবী হতে হলে উদার মানসিকতার হতে হবে। এই সেমিনার স্বেচ্ছাসেবীদের অনুপ্রেরণা হিসেবে কাজ করবে। স্বেচ্ছাসেবী কাজের মাধ্যমে মানুষের জীবনের পরিবর্তন করতে হবে। আমি বিশ্বাস করি, এটা স্বেচ্ছাসেবী কাজের মাধ্যমেই সম্ভব। জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতি থেকে আমাদের রক্ষা করতে হবে। একই সঙ্গে সামাজিকভাবে রক্ষা করতে হবে।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন ভিএসও-বাংলাদেশ এর কান্ট্রি ডিরেক্টর জনাব খবিরুল হক কামাল। এছাড়াও অনুষ্ঠানে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের পরিচালক হামিদ খান, ব্রুনাই দারুস সালামের হাই কমিশনার হারিস ওথমান, বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের (বিইউপি) উপ-উপাচার্য প্রফেসর খন্দকার মোকাদ্দেম হোসেন, আইএলও বাংলাদেশের প্রজেক্ট ম্যানেজার একে এম মাসুমুল আলম ও যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের পরিচালক (প্রশাসন)হামিদ খান, জি আই জেড বাংলাদেশের হামিদুল ইসলাম চৌধুরী প্রমুখ বক্তব্য প্রদান করেন।

//