শিক্ষার্থীদের রক্ষায় তামাক কোম্পানিকে কোনো প্রকার সহযোগিতা করবেনা ডিআইইউ


Rakibul Islam | Published: 2024-02-11 11:21:20 BdST | Updated: 2024-03-04 21:53:01 BdST

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি তামাক কোম্পানিকে কোনো প্রকার সহযোগিতা না করার নীতি গ্রহণ করেছে।

গতকাল শনিবার বাংলাদেশ তামাক বিরোধী জোট, টোব্যাকো কন্ট্রোল এন্ড রিসার্চ সেল (টিসিআরসি), ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ও ডাব্লিউবিবি ট্রাস্ট এর সম্মিলিত আয়োজনে এক কর্মসূচিতে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে।

ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি উপাচার্য প্রফেসর ড.সাইফুল ইসলাম এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বিশ্ববিদ্যালয়টির বোর্ড অব ট্রাষ্টির চেয়ারম্যান এবং টিসিআরসির প্রেসিডেন্ট ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী। বিশেষ অথিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. গণেশ চন্দ্র সাহা, ভাইটাল স্ট্র্যাটিজিস এর সিনিয়র টেকনিক্যাল এডভাইসার সৈয়দ মাহবুবুল আলম এবং ডাব্লিউবিবি ট্রাস্ট’র হেড অব প্রোগ্রাম সৈয়দা অনন্যা রহমান।

সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন, আইন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মিলি সুলতানা, অতিরিক্ত রেজিস্ট্রার ড. শাহ আলম চৌধুরী প্রমুখ।

এসময় ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী বলেন, পৃথিবীর সবথেকে বেশি মানুষকে হত্যার মূল কারিগর তামাক কোম্পানি। সকল প্রকার নেশার মূল কারণ তামাক এবং তামাক নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হলে এইসকল নেশাও অতি দ্রুত নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হবে। তামাক কোম্পানি অবৈধ প্রভাব খাটিয়ে তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন সংশোধনে বাঁধা সৃষ্টি করছে। পাশাপাশি তরুনদেরকে চাকরির লোভ দেখিয়ে পরোক্ষভাবে নিজেদের পণ্যের প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে। পরিশেষে তিনি ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে অধ্যায়নরত শিক্ষার্থীদের সাথে নিয়ে তামাক কোম্পানির হস্তক্ষেপ প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণের প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

প্রফেসর ড. গণেশ চন্দ্র সাহা বলেন, তামাক নিয়ন্ত্রণে ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি এক যুগেরও বেশি সময় ধরে সরকারি, বেসরকারি ও আন্তর্জাতিক পরিসরে কাজ করে আসছে। তামাক নিয়ন্ত্রণ বিষয়ক গবেষণা ও নীতি নির্ধারণেও তারা অবদান রাখছে। সামনের দিনগুলোতেও এ ধারা অব্যাহত থাকবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

 

 

//