রাবিতে ফল বিপর্যয় : আমরণ অনশনে শিক্ষার্থীরা আমরণ অনশনে শিক্ষার্থীরা


RU Correspondent | Published: 2022-12-05 15:43:14 BdST | Updated: 2023-02-03 19:11:51 BdST

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) উর্দু বিভাগের ২০১৯-২০ সেশনের দ্বিতীয় সেমিস্টার পরীক্ষায় ফল বিপর্যয়ের সমাধান না পেয়ে আমরণ অনশনে বসেছেন শিক্ষার্থীরা। দ্রুত সমাধান না পেলে অনশন ভাঙ্গবেন না বলে জানান তারা। শিক্ষার্থীরা সোমবার (৫ ডিসেম্বর) বেলা ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সৈয়দ নজরুল ইসলাম প্রশাসনিক ভবনের সামনে অনশনে বসেন।

জানা যায়, গত ২৫ আগস্ট প্রথম বর্ষের ফলাফল প্রকাশিত হলে সেখানে বিভিন্ন অসঙ্গতি দেখতে পান শিক্ষার্থীরা। মোট ৩৮ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে চারজনের সিজিপিএ তিন এর ওপরে, আর কিছু শিক্ষার্থীর দুই এর ওপরে পেয়েছেন। আর ১০৪ নং কোর্সে ১৪ জন ফেল ও আটজনের এয়ার ড্রপ হয়। এমন অসংগতি দেখে বিভিন্ন সময় আন্দোলন করেন শিক্ষার্থীরা। এর আগেও বিভাগে মূল ফটকে তালা দেওয়া, অবস্থান কর্মসূচি পালন করেও কোনো সমাধান পাননি তারা। এরপর পুনর্বিবেচনা করে ৩০ নভেম্বর আবার ফল প্রকাশের আশ্বাস দেয় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। কিন্তু নির্ধারিত সময়ে ফলাফল প্রকাশিত না হওয়ায় আমরণ অনশনে বসেছেন উর্দু বিভাগের শিক্ষার্থীরা।

ফল বিপর্যয়ে ভুক্তভোগী উর্দু বিভাগের এক শিক্ষার্থী সুরাইয়া আক্তার বলেন, শিক্ষকরা আমাদের ক্লাসেই হুমকি দিতেন। তারা বলতেন, তোমরা কীভাবে ভালো রেজাল্ট করো আমি দেখে নেব, উপর তলা থেকে তোমাদের নিচ তলায় নামিয়ে দেব। আমরা একটা ফরেন ভাষা উর্দু বিভাগে পড়ি তাই আমাদের অনেক সমস্যা থাকতে পারে। অতিদ্রুত আমাদের ফল পুনর্বিবেচনা করে প্রকাশ না করলে আমরা অনশন ভাঙব না।

আরেক শিক্ষার্থী জাহিদ হাসান বলেন, শিক্ষকদের অভ্যন্তরীণ ও রাজনৈতিক কোন্দলের প্রভাবে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে ইচ্ছে করেই এমন ফল বিপর্যয়ের ঘটনা ঘটানো হয়েছে। আমাদের অভিযোগ স্বীকার করে পুনর্মূল্যায়নের আশ্বাস দিয়েছিলেন শিক্ষকরা। পুনর্মূল্যায়ন ফল প্রকাশ করার বিভিন্ন সময় নির্ধারণ করলেও তা প্রকাশ করেনি। সর্বশেষ ৩০ নভেম্বর প্রকাশ করার কথা থাকলেও প্রকাশ না করে কালক্ষেপণ করছে।

নুসরাত জাহান বলেন, আমাদের একটাই দাবি আমাদের যে ফলাফল বিপর্যয় ঘটেছে তা পুনর্মূল্যায়ন করে দ্রুত সময়ের মধ্যে ফলাফল প্রকাশিত করতে হবে। যতক্ষণ না আমাদের ফলাফল প্রকাশিত হচ্ছে ততক্ষণ অবধি আমরা অনশন চালিয়ে যাব।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে উর্দু বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক আতাউর রহমান বলেন, শিক্ষার্থীরা আমরণ অনশনে বসেছে শুনেই আমাদের বিভাগের শিক্ষকদের ডেকেছি। আমরা কিছুক্ষণের মধ্যেই শিক্ষার্থীদের কাছে যাব এবং তাদের দাবিগুলো শুনে তা সমাধানের চেষ্টা করব।

//