বিমার অর্থ পেলেন সাপের ছোবলে মারা যাওয়া রাবি শিক্ষার্থীর পরিবার


Desk report | Published: 2024-05-28 19:58:32 BdST | Updated: 2024-06-19 12:29:33 BdST

গত ৬ মে সাপের ছোবলে মারা যান রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) শিক্ষার্থী মো. শাকিনুর রহমান। তার মৃত্যুর ২২ দিনের মধ্যে স্বাস্থ্যবিমার ২ লাখ টাকা পেয়েছেন ওই শিক্ষার্থীর পরিবার। মঙ্গলবার (২৮ মে) দুপুর ১২টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সৈয়দ নজরুল ইসলাম প্রশাসন ভবনে উপাচার্যের কক্ষে শাকিনুর রহমানের মায়ের হাতে টাকার চেক হস্তান্তর করা হয়। চেক তুলে দেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. গোলাম সাব্বির সাত্তার।

এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. জাহাঙ্গীর আলম সাউদ ও মনোবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. তরুণ কুমার জোয়ার্দার। এর আগে সোমবার (২০ মে) উপাচার্যের কাছে দুই লাখ টাকার চেক হস্তান্তর করেন জেনিথ ইসলামী লাইফের মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) এস এম নুরুজ্জামান।

বিমার টাকা পাওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে শাকিনুরের বড় ভাই মো. মোশাররফ হোসেন বলেন, ভাইকে হারিয়ে আমরা শোকাহত। এতো অল্প বয়সে আমার ভাইকে হারাতে হবে সেটা কখনোই ভাবিনি। তাকে হারানোর অভাব কেউ পূরণ করতে পারবে না। তবে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন এই অল্প সময়ের মধ্যে আমাদের পরিবারকে আর্থিকভাবে সহযোগিতা করলো। আমাদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য তাদেরকে ধন্যবাদ জানাই।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. গোলাম সাব্বির সাত্তার বলেন, আমরা আমাদের মেধাবী শিক্ষার্থী শাকিনুর রহমানকে হারিয়ে শোকাহত। তাকে হারানোর যে কষ্ট তার পরিবারের, সেটি হয়তো আমরা কখনোই পূরণ করতে পারতে পারবো না। তবুও তার পরিবারের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করেছি আমরা। আমি প্রশাসনে এসে শিক্ষার্থীদের জন্য স্বাস্থ্যবিমা চালু করেছিলাম। যার সুফল এখন আমরা সবাই পাচ্ছি। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন থেকে আমরা যথাসাধ্য চেষ্টা করেছি শাকিনুরের পরিবারের পাশে দাঁড়াতে। আমরা জেনিথ লাইফ ইন্সুরেন্সের সঙ্গে কথা বলে দ্রুত সময়ে তার বিমার দুই লাখ টাকা নিয়ে আজকে তার মায়ের কাছে চেক হস্তান্তর করেছি।

গত ৬ মে সন্ধ্যা ৭টার দিকে পদ্মা নদীর তীরে রাসেল ভাইপার সাপের কামড়ে মারা যান শাকিনুর রহমান। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোবিজ্ঞান বিভাগের স্নাতকোত্তর দ্বিতীয় সেমিস্টারের শিক্ষার্থী ছিলেন।