মধুতে মারামারি, ঢাবির ৪ কর্মী বহিষ্কার


ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় | Published: 2024-01-23 21:14:49 BdST | Updated: 2024-04-14 20:09:01 BdST

কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক শেখ ওয়ালী আসিফ ইনানের পেছনে দাঁড়ানোকে কেন্দ্র করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) দুই হলের কর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে বেশ কয়েকজন আহত হন। পরে এ ঘটনায় চারজনকে সাময়িক বহিষ্কার করেছে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। 

আজ মঙ্গলবার বিকেলে ছাত্রলীগের দপ্তর সম্পাদক মেফতাহুল ইসলাম পান্থ স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ তথ্য জানানো হয়। দুপুরের দিকে ঢাবির মধুর ক্যানটিনে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। 

সাময়িক বহিষ্কার হয়েছেন মাশফিউর রহমান, ফিরোজ আলম অপি, আব্দুল্লাহ আল মারুফ ও নিঝুম ইফতার। তাঁরা সবাই ঢাবির বিজয় একাত্তর হল শাখা ছাত্রলীগের কর্মী। 

ঘটনার একাধিক প্রত্যক্ষদর্শী জানান, মধুর ক্যানটিনে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ ওয়ালী আসিফ ইনানকে প্রটোকল ও সালাম দিয়ে পেছনে দাঁড়ানোকে কেন্দ্র করে মারামারিতে জড়ায় ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা। দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজয় একাত্তর হল শাখার কর্মীরা সূর্যসেন হল শাখা কর্মীদের মারধর করেন। এ ঘটনায় বেশ কয়েকজন আহত হন। 
 
তাঁরা জানান, প্রথমে মধুর ক্যানটিনে ইনানের পাশে দাঁড়ানোকে কেন্দ্র করে সূর্যসেন হল ও বিজয় একাত্তর হলের কর্মীদের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটে। ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নেতারা ঘটনার মীমাংসা করে দিলে পরে হল থেকে আবার দেশীয় অস্ত্র এনে সূর্যসেন হলের নেতা-কর্মীদের মারধর করেন বিজয় একাত্তর হলের কর্মীরা। মারধরের এ ঘটনায় সূর্যসেন হলের উপদপ্তর সম্পাদক কামরুল হাসান ও কর্মী সাইদুর রহমান শান্তসহ বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। আহতরা ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসা নেন। 

বিজয় একাত্তর হলের ইনানের গ্রুপের নেতৃত্বদানকারী ও আসন্ন হল কমিটির শীর্ষ পদপ্রত্যাশী সাদিক মিয়া আজকের পত্রিকাকে বলেন, ‘ইনান ভাইকে সালাম দিতে গেলে সূর্যসেন হলের কর্মীদের সঙ্গে কথা-কাটাকাটি হয়। তাঁরা (সূর্যসেন) আমাদের (বিজয় একাত্তর) মাশফিউরকে আহত করেন। তবুও আমরা নিজেদের নেতা-কর্মীদের নিয়ন্ত্রণে রাখি। কিন্তু সূর্যসেন হলের নেতা-কর্মীরা আমাদের নিয়ে স্লেজিং (বিদ্রূপাত্মক উসকানি) করলেও আমরা কোনো কিছু করিনি। হলে এসে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে পাল্টা মারধরের বিষয়টি সত্য নয়।’ 

সূর্যসেন হল ছাত্রলীগের উপ তথ্য ও প্রযুক্তি সম্পাদক সিফাত আল শাফি আজকের পত্রিকাকে বলেন, ‘কেন্দ্রীয় নেতাদের উপস্থিততে সূর্যসেন হলের কর্মীদেরকে মারধর করেন বিজয় একাত্তর হলের নেতা-কর্মীরা। এ ঘটনায় বেশ কয়েকজন আহত হন। এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার হওয়া উচিত।’ 

সার্বিক বিষয়ে শেখ ওয়ালী আসিফ ইনান বলেন, বিষয়টি খুবই দুঃখজনক। প্রাথমিকভাবে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে, বিষয়টির তদন্তও চলছে।