ঢাবিতে শীতার্তদের মধ্যে ছাত্রলীগের শীতবস্ত্র বিতরণ


DU Correspondent | Published: 2024-01-28 18:14:05 BdST | Updated: 2024-03-04 20:55:24 BdST

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে শীতার্ত মানুষের মধ্যে শীতবস্ত্র বিতরণ করেছে ছাত্রলীগ। বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যে এই শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়।

রোববার (২৮ জানুয়ারি) বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রে ‘মানবিকতায় অগ্রদূত ছাত্রলীগ’ শীর্ষক দেশব্যাপী চলমান কর্মসূচির অংশ হিসেবে আয়োজিত অনুষ্ঠানে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মো. মহিববুর রহমান প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে শীতার্তদের মধ্যে কম্বল বিতরণ করেন।

সভাপতির বক্তব্যে ঢাবি ছাত্রলীগের সভাপতি সাদ্দাম হোসেন বলেন, আলোকিত মানুষ গড়ার কাজ কারিগর হলো ছাত্রলীগ। যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলার ক্ষমতা রয়েছে ছাত্রলীগের। ক্যাম্পাসে তারা শিক্ষার্থীদের নিয়ে ভাবে, তরুণদের স্বপ্নপূরণের জন্য কাজ করে, তরুণদের ক্যারিয়ার নিয়ে ভাবে, আগামী ২০ বছর পরে দেশের অবস্থা কেমন হবে সেটা নিয়ে ভাবে, রাজনীতি নিয়েও তারা ভাবে।

তিনি বলেন, এই শীতে মানুষ কাঁপছে, দ্রব্যমূল্যের ক্রমাগত ঊর্ধ্বগতির বাস্তবতার কথা মাথায় রেখেই ছাত্রলীগ সারাদেশে শীতবস্ত্র বিতরণ করছে। শুধু কেন্দ্রীয়ভাবে নয় বরং ছাত্রলীগের শাখা উপশাখা এবং ব্যক্তিগত পর্যায়ে নেতাকর্মীরা সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে। দেশের মানুষের প্রতি দায়িত্বের অংশ হিসেবে এই কর্মসূচি পালন করছে ছাত্রলীগ। আগামীকাল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিন থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের শীতবস্ত্র দেওয়া হবে। সারাদেশে ইতিমধ্যে কম্বল পাঠানো হয়েছে। এই সপ্তাহের মধ্যেই সারাদেশের গরিব মানুষরা শীতবস্ত্র পেয়ে যাবে।

বর্তমান শিক্ষা কারিকুলাম নিয়ে তিনি বলেন, আজকের শিক্ষাক্রম সাধারণ শিক্ষার্থীদের আধুনিক যুগোপযোগী এই কারিকুলাম যা দেশের বৈপ্লবিক পরিবর্তন সাধন করবে। তবে এখানে যদি কোনো সমস্যা থাকে তাহলে এটি সমাধান করা সম্ভব। এগুলোকে কেন্দ্র করে যারা রাজনীতি করতে চায়, যারা সাম্প্রতিক উসকানিমূলক কথা বলছে তারা দেশের শিশুদের নিয়ে ছিনিমিনি খেলছে। তাদের বিরুদ্ধে রাজনৈতিকভাবে লড়াই করা হবে। ছাত্রলীগ দেশের শিশুদের রক্ষার্থে প্রয়োজনে বিভিন্ন জায়গায় ক্যাম্পেইন করবে।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মো. মহিববুর রহমান বলেন, আমরা বঙ্গবন্ধুর সান্নিধ্য পাইনি, তবে আমরা তার কন্যা শেখ হাসিনার কর্মী হতে পেরেছি। এর চেয়ে গর্বের আর কিছু নেই। শেখ হাসিনা এমন একজন নেত্রী যার সম্পর্কে বারাক ওবামা বলেছিলেন, তোমরা যদি উন্নয়ন দেখতে চাও তাহলে বাংলাদেশ ও শেখ হাসিনার দিকে তাকাও। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, আমার পরিবার শেখ হাসিনাকে পছন্দ করে ও অনুসরণ করে, ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট বলেছিলেন, বাংলাদেশের উন্নয়নে শেখ হাসিনার ভাই হিসেবে আমরা উন্নয়নের অংশীদার হতে চাই, জাপানের প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা শেখ হাসিনার ভাই। তাই বাংলাদেশের উন্নয়নে আমরা তার সঙ্গে কাজ করতে চাই। শেখ হাসিনা দেশের অনুসরণীয় ও অনুকরণীয় ব্যক্তিত্ব।

এসময় তিনি ছাত্রলীগের উদ্যোগে দেশব্যাপী শীতবস্ত্র বিতরণে নেতাকর্মীদের ধন্যবাদ জানান এবং তিনি নিজে ছাত্রলীগের কর্মী হিসেবেই আজকে শীতার্তদের মধ্যে শীতবস্ত্র বিতরণ করতে এসেছেন বলেও উল্লেখ করেন।

ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ ওয়ালী আসিফ ইনানের সঞ্চালনায় শীতবস্ত্র বিতরণ কর্মসূচিতে ঢাবি সভাপতি মাজহারুল কবির শয়ন ও সাধারণ সম্পাদক তানভীর হাসান সৈকত বক্তব্য দেন।

//