বঙ্গবন্ধু নেই, তার অবিনাশী চেতনা আজও জাগ্রত


ঢাকা | Published: 2021-03-22 14:00:54 BdST | Updated: 2021-04-11 12:30:51 BdST

মওলানা ভাসানী তখন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি; সাধারণ সম্পাদক শেখ মুজিবুর রহমান। তখনও তিনি বঙ্গবন্ধু হয়ে ওঠেননি। ভাসানী সাহেব কোন একটি কাজে শেখ মুজিবকে এক আধুলি দিয়ে নারায়ণগঞ্জে পাঠিয়েছিলেন একটি কাজে। যাথারীতি তিনি নারায়ণগঞ্জে গেলেন কাজ শেষে ফিরে এসে আধুলি মাওলানা ভাসানীকে ফেরত দিলেন। মওলানা সাহেব খুব আশ্চর্য হলেন এবং প্রশ্ন করলেনঃ মুজিব তুমি কিভাবে নারায়ণগঞ্জে গেছো? তখন শেখ মুজিব বলেনঃ হুজুর আমি সাইকেল নিয়ে নারায়ণগঞ্জ গেছি; তাই আপনার দেওয়া এই অর্থের প্রয়োজন হয়নি! এটাই হচ্ছেন আমাদের স্বাধীন রাষ্ট্রের স্থাপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।

দক্ষিণ এশিয়ার প্রবীণ রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব প্রয়াত শ্রদ্ধেয় প্রনব মুখার্জি বলেছিলেনঃ শেখ মুজিব যদি বেচে থাকতেন তাহলে দক্ষিন এশিয়ার রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট ও ইতিহাস অন্য ভাবেই রচিত হত।

ফিদেল কাস্ত্রো বলেছেন: আমি হিমালয় দেখিনি; আমি বঙ্গবন্ধুকে দেখেছি।

এমন অনেক বিশেষণে বিশেষায়িত করেও বঙ্গবন্ধুকে নিরুপণ করা অনেক কঠিন; তার তুলনা তিনি নিজেই।

পাকিস্তান শোষক গোষ্ঠী প্রায় দুই যুগ ধরে বাংলাদেশকে শোষন করেছে। তিনি পাকিস্থান প্রিয়ডের দুই যুগের এক যুগ পার করেছেন পাকিস্তান জেলে বঙালীর অধিকার আদায়ের জন্য; পৃথিবীতে এমন নেতাও বিরল। যার কারণে সাত কোটি বাঙালীকে দাবিয়ে রাখতে পারেনি কেউ সেই হিমালয়ের মতো মানুষটিকে রক্ষা করতে পারেনি বাঙালী। পৃথীবিতে অনেক রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বকে প্রান দিতে হয়েছে সে দেশের আততায়ী অথবা বিপদগামীদের হাতে। কিন্তু সপরিবারে রাজনৈতিক হত্যাকান্ডের দৃষ্টান্ত পৃথিবীতে আর একটিও নেই!

বঙ্গবন্ধুকে বাঙালীর হৃদয় থেকে মুছে ফেলতে পাঠ্যপুস্তক থেকে বঙ্গবন্ধুর নাম সরিয়ে দেওয়া হয়েছে; ইনডেমনিটি জাড়ি করে বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডকে বৈধ্যতা দেওয়া হয়েছে; তার হত্যাকারীদের পুরষ্কৃত করা হয়েছে। বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের বিচারকে বিলম্বিত ও বাধাগ্রস্ত করার হিন্যচেষ্টাও চলেছে। কিন্তু যিনি বাঙালীর ইতিহাসের শ্রষ্টা এবং বাংলাদেশের জনক তাকে বাংলার ইতিহাস থেকে, বাঙালীর হৃদয় থেকে মুছে দেবে; এমন সাধ্য কার!?

দেশীয় ও আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্রের শিকার হয়ে বঙ্গবন্ধুকে যদি অকালে যদি চলে যেতে না হত তবে বাংলাদেশের ইতিহাসটা অন্য ভাবেই রচিত হত; অনেক আগেই বাংলাদেশ হত বিশ্বের কয়েকটি উন্নত রাষ্ট্রের একটি। এই কারণে সন্দেহতীত ভাবেই বলা যায় জাতিগত ভাবে বাঙালী বড়ই অভাগা। অসময়ে বঙ্গবন্ধুর অনুস্থিতি আমাদের জন্য অপূরণীয়।

বঙ্গবন্ধু আজ নেই; তবু তার অবিনাশী চেতনা আজও জাগ্রত ও অবিনশ্বর প্রতিটি প্রগতিশীল মুক্তিকামী বাঙালীর হৃদয় জুড়ে। তিনি আছেন বাংলার নদীনালা খালবিল মেঠোপথ হয়ে; আছেন মিশে আমাদের আশার বাতিঘর জননেত্রী দেশরত্নের প্রতিরুপে।
বঙ্গবন্ধু অবিনাশী অবিনশ্বর এক চেতনার নাম;
তিনি বঙ্গবন্ধু; তিনি বাংলাদেশ।।

জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু;
বঙ্গবন্ধুর অবিনাশী চেতনা চিরজীবী হোক।।

লেখকঃ মোঃ ফুয়াদ হাসান, উপ-আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ-কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদ