সেন্ট মার্টিনে চবি শিক্ষার্থীদের ওপর হামলাকারীদের বিচার দাবি


CU Correspondent | Published: 2023-03-20 04:52:34 BdST | Updated: 2024-05-25 14:55:51 BdST

কক্সবাজারের সেন্ট মার্টিনে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষক শিক্ষার্থীদের ওপর জাহাজের কর্মচারীদের হামলার প্রতিবাদে পৃথকভাবে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ হয়েছে। আজ রোববার বিশ্ববিদ্যালয়ের জিরো পয়েন্টে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করেন শিক্ষার্থীরা। পরে প্রশাসনিক ভবনের সামনে মানববন্ধন করেন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি।

এ সময় শিক্ষার্থীরা পাঁচ দফা দাবি উত্থাপন করেন। দাবি হলো-এই ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে গ্রেপ্তার করতে হবে, বে ক্রুজ ইন্টারন্যাশনাল জাহাজের লাইসেন্স আজীবনের জন্য বাতিল করতে হবে, বে ক্রুজ ইন্টারন্যাশনাল জাহাজ কর্তৃপক্ষের মিথ্যা ও বানোয়াট স্টেটমেন্ট প্রত্যাহার পূর্বক লিখিত মুচলেকা দিয়ে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে হবে, জাহাজ কর্তৃপক্ষ কর্তৃক শিক্ষক শিক্ষার্থীদের জানমালের যে অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে তার যথাযথ ক্ষতিপূরণ প্রদান করতে হবে এবং দায়িত্বরত আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর গাফিলতির জন্য তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

অন্যদিকে চবি শিক্ষক সমিতি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বাদী হয়ে যেন এই ঘটনায় মামলা ও আইনি পদক্ষেপ নেওয়ার কথা বলেন। তারা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন, অর্থনীতি বিভাগ, প্রক্টরিয়াল বডি ও চবি শিক্ষক সমিতির প্রতিনিধিদের সমন্বয়ে একটি মনিটরিং সেল গঠনেরও দাবি জানান।

চবি শিক্ষার্থী মাহফুজুর রহমান বলেন, ‘আমরা প্রেসক্লাবে মানববন্ধন করেছিলাম। আমাদের বিশ্ববিদ্যালয় ও সংশ্লিষ্ট প্রশাসন থেকে আশ্বাস দেওয়া হয়েছিল জড়িতদের আটক করবে, কিন্তু কাউকে আটক করা হয়নি বরং আটক একজনকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। আমরা প্রশাসনের দ্রুত পদক্ষেপ দেখতে চাই। আমরা পাঁচ দফা দাবি দিয়েছি।’

চবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মুস্তাফিজুর রহমান ছিদ্দিকী বলেন, ‘আমরা ভেবেছিলাম এই ঘটনার পর দ্রুত বিচার হবে, দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। কিন্তু আমরা দেখছি, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন কিংবা স্থানীয় প্রশাসন থেকে কার্যকর কোনো উদ্যোগ দেখতে পাইনি। এখন আর সমঝোতার প্রশ্ন নেই, যারা লাঞ্ছিত হয়েছেন, তারা আমাদের শিক্ষক শিক্ষার্থী নয়, সমগ্র দেশের শিক্ষক শিক্ষার্থী সমাজকে লাঞ্ছিত করেছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা মনে করি, মামলার দায়িত্ব বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক শিক্ষার্থীর নয়। তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি না হলে এই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটবে। মূলত এই সব বিচ্ছিন্ন ঘটনার মাধ্যমে তারা বর্তমান সরকারের সাফল্যকে ভূলুণ্ঠিত করার চেষ্টা চালাচ্ছে। আমরা যদি কার্যকর পদক্ষেপ না দেখি, আমরা পরবর্তী পদক্ষেপ নেব।’

উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার সেন্টমার্টিন থেকে ফেরার পথে সেন্টমার্টিন জেটিঘাট ও টেকনাফ জেটিঘাটে পরপর দুই দফা অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষক শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা করে বে ক্রুজ ইন্টারন্যাশনাল নামক জাহাজের কর্মচারী ও স্থানীয় লোকজন। এ ঘটনার পর টেকনাফ থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়।