চবির ভর্তিযুদ্ধ শুরু আজ, আসনপ্রতি লড়বেন ৪৯ ভর্তিচ্ছু


CU Correspondent | Published: 2024-03-02 10:38:47 BdST | Updated: 2024-04-14 21:16:58 BdST

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) ২০২৩-২৪ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষা শুরু হচ্ছে আজ। বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘এ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার মধ্যে দিয়ে শুরু হবে এবারের ভর্তিযুদ্ধ। এবার চট্টগ্রাম, ঢাকা ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে একযোগে চবির ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। ভর্তি পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

গত বুধবার সংবাদ সম্মেলন করে ভর্তি পরীক্ষার যাবতীয় বিষয় সম্পর্কে জানিয়েছেন চবি প্রক্টর অধ্যাপক ড. নূরুল আজিম সিকদার। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের ঘোষণা অনুযায়ী আগামী ২, ৮, ৯ ও ১৬ মার্চ—এ চার দিন নতুন সময়সূচিতে শাটল ট্রেন চলবে। অন্য দিনগুলোতে ট্রেন চলবে আগের সময়সূচিতে।

যে সূচিতে চলবে শাটল
নতুন সময়সূচি অনুযায়ী ভর্তি পরীক্ষার চার দিন ট্রেন চট্টগ্রাম নগরের বটতলী থেকে সকাল ৬টা, সাড়ে ৬টা, ৮টা ১৫ মিনিট, ৮টা ৪০ মিনিট, বেলা ২টা ৫০ মিনিট, বেলা ৩টা ৫০ মিনিট ও রাত সাড়ে ৮টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্দেশে ছেড়ে আসবে। আর বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস থেকে সকাল ৭টা ৫ মিনিট, ৭টা ৩৫ মিনিট, বেলা ১টা, দেড়টা, বিকেল ৪টা, সাড়ে ৫টা ও রাত সাড়ে ৯টায় নগরের বটতলীর উদ্দেশে ট্রেন ছেড়ে যাবে।

ভর্তি পরীক্ষার সময়
এবার প্রতিটি ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা বেলা ১১টায় শুরু হয়ে দুপুর ১২ টার সময় শেষ হবে। এর আগে সকাল ১০ টা ১৫ এর মধ্যে পরীক্ষার্থীদের কেন্দ্রে প্রবেশ করতে হবে। সাড়ে ১০টায় ওএমআর শিট দেওয়া হবে এবং প্রশ্নপত্র বিতরণ করা হবে ১১টায়। পরীক্ষা শেষ হবে দুপুর ১২ টায়।

আসন প্রতি লড়বেন ৪৯ জন
এবারের ভর্তি পরীক্ষায় চবির চারটি ইউনিট ও দুটি উপ-ইউনিটের মোট ৪ হাজার ৯২৬ টি আসনের বিপরীতে আবেদন করেছে ২ লাখ ৪৩ হাজার ৫৫৫ জন শিক্ষার্থী। সে হিসেবে এবার আসন প্রতি লড়বেন ৪৯ জন শিক্ষার্থী।

কোন কেন্দ্রে কত পরীক্ষার্থী
এবার চবির ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে তিনিটি বিভাগীয় শহরে- চট্টগ্রাম, ঢাকা ও রাজশাহী। বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘এ’ ইউনিটের অধীনে রয়েছে চারটি অনুষদ। এগুলো হলো- বিজ্ঞান, জীববিজ্ঞান, ইঞ্জিনিয়ারিং ও মেরিন সায়েন্স অ্যান্ড ফিশারিজ অনুষদ। এ চার অনুষদে মোট আসন রয়েছে ১ হাজার ২১৫ টি এবং আবেদন করেছে ৯৯ হাজার ৫২১ জন শিক্ষার্থী। ‘এ’ ইউনিটে আসনপ্রতি লড়বেন ৮১ জন।

এর মধ্যে চবি ক্যাম্পাসের ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেবেন ২৩ হাজার ৯০৮ জন ও চবি ক্যাম্পাস ব্যতিত অন্যান্য কেন্দ্রে অংশ নিবেন ১৩ হাজার জন। অন্যদিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ (ঢাবি) ঢাকার অন্যান্য কেন্দ্রে পরীক্ষা দিবেন ৪৪ হাজার ৭৯৯ জন ভর্তিচ্ছু এবং রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) কেন্দ্রের পরীক্ষার্থী ১৭ হাজার ৭৯২ জন।

অন্যান্য ইউনিটভিত্তিক তথ্য
‘বি’ ইউনিট: কলা ও মানববিদ্যা অনুষদভুক্ত ‘বি’ ইউনিটে মোট ১ হাজার ২২১টি আসনের বিপরীতে আবেদন করেছে ৬৫ হাজার ২৬৭ জন শিক্ষার্থী। আসন প্রতি লড়বেন ৫৩ জন। অন্যদিকে ‘বি-১’ উপ-ইউনিটে ১২৫টি আসনের বিপরীতে আবেদন করেছে ১ হাজার ৬৬৯ জন শিক্ষার্থী। আসন প্রতি লড়বেন ১৩ জন।

‘সি’ ইউনিট: ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদভুক্ত ‘সি’ ইউনিটে আসন রয়েছে ৬৪০টি। এর বিপরীতে আবেদন করেছে ১৭ হাজার ৩০০ জন শিক্ষার্থী। অর্থাৎ, আসনপ্রতি লড়বেন ২৭ জন।

‘ডি’ ইউনিট: সমাজবিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ডি’ ইউনিটে আসন রয়েছে ৯৫৮টি এবং আবেদন করেছেন ৫৭ হাজার ৮০৪ জন শিক্ষার্থী। আসনপ্রতি লড়বেন ৬০ জন। অন্যদিকে ‘ডি-১’ উপ-ইউনিটের ৩০টি আসনের বিপরীতে আবেদন করেছে ১ হাজার ৯৯৪ জন শিক্ষার্থী। প্রতি আসনে লড়বেন ৬৬ জন।

পরীক্ষার সূচি
আজ ২ মার্চ ‘এ’ ইউনিটের পরীক্ষা দিয়ে শুরু হবে ভর্তি পরীক্ষা। ৮ মার্চ ‘বি’ ইউনিট, ৯ মার্চ ‘সি’ ইউনিট এবং ১৬ মার্চ অনুষ্ঠিত হবে ‘ডি’ ইউনিটের পরীক্ষা। এ ছাড়া ‘বি-১’ উপ-ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা ৩ মার্চ ও ‘ডি-১’ উপ-ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা ৪ মার্চ, ‘বি-১’ উপ-ইউনিটের ব্যবহারিক পরীক্ষা হবে ১২, ১৩ ও ১৪ মার্চ। ‘ডি-১’ উপ-ইউনিটের ব্যবহারিক পরীক্ষা ১০ ও ১১ মার্চ অনুষ্ঠিত হবে।

ভর্তিচ্ছুদের নিরাপত্তা
ভর্তি পরীক্ষায় ভর্তিচ্ছুদের নিরাপত্তা দিতে পুলিশ বাহিনী, ডিজিএফআই, এনএসআই, ডিএসবি, রেলওয়ে পুলিশ, প্রক্টরিয়াল বডি, নিরাপত্তা কর্মী, বিএনসিসি এবং রোভারস্কাউটের প্রায় ৭ শতাধিক কর্মী ভর্তিচ্ছুদের নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত থাকবেন।

ভর্তিচ্ছুদের প্রয়োজনীয় নির্দেশনা
১. সিট প্ল্যান দেখার আগে অবশ্যই প্রবেশপত্র ডাউনলোড করতে হবে।

২. প্রত্যেক পরীক্ষার্থীর ডাউনলোডকৃত দু'কপি প্রবেশপত্র, পাসপোর্ট সাইজের দু’কপি ছবি (প্রবেশপত্রে আঠা/পিন দিয়ে লাগিয়ে) ও উচ্চমাধ্যমিক/সমমান পরীক্ষার মূল রেজিট্রেশন কার্ড ভর্তি পরীক্ষার দিন অবশ্যই সঙ্গে নিয়ে আসতে হবে।

৩. পরীক্ষার্থীরা পরীক্ষার হলে FX-100 বা এর নিচে সাধারণ মানের (মেমরী অপশন ব্যতীত) ক্যালকুলেটর ব্যবহার করতে পারবে। পরীক্ষার হলে প্রার্থীর মোবাইল ফোন, Calculator with Memory Option, Electronic Device সম্বলিত ঘড়ি ও কলম বা যে কোনও ধরনের Device সঙ্গে রাখা সম্পূর্ণভাবে নিষিদ্ধ।

৪. চবি ক্যাম্পাসে আগত সব পরীক্ষার্থী, পরীক্ষার্থীর অভিভাবক এবং সংশ্লিষ্ট সকলকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

৫. অপ্রত্যাশিত ভিড় এড়ানো ও শৃঙ্খলা রক্ষার স্বার্থে আগত পরীক্ষার্থীদের সঙ্গে একের অধিক অভিভাবক চবি ক্যাম্পাসে না আসার জন্য সংশ্লিষ্ট সকলকে অনুরোধ করা হয়েছে।

৬. চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ অতীতের ন্যায় বিধিবদ্ধ নিয়মনীতি কঠোরভাবে অনুসরণপূর্বক অত্যন্ত গোপনীয়তা ও সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করে প্রশ্নপত্র প্রণয়নসহ ভর্তি পরীক্ষা সংক্রান্ত সার্বিক কার্যক্রম পরিচালনা করছে। এ বিষয়ে কারো কাছে কোন অভিযোগ দৃষ্টিগোচর হলে তা পরীক্ষার্থীদের কেন্দ্রে প্রবেশ সময়ের ন্যূনতম ১ (এক) ঘণ্টা পূর্বে সকল প্রমাণাদিসহ সংশ্লিষ্ট ইউনিট কো-অর্ডিনেটরের কাছে লিখিত অভিযোগ করা যাবে।

এ সময়ের পরে পরীক্ষা বা প্রশ্নপত্র সংক্রান্ত কোন অভিযোগ গ্রহণ করা হবে না। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকসহ অন্যকোন মাধ্যমে যে কোন ধরনের অপপ্রচারে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য ভর্তি পরীক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবক এবং সংশ্লিষ্ট সকলকে অনুরোধ জানানো হয়েছে।

৭. ভর্তি পরীক্ষায় কারো বিরুদ্ধে কোন ধরনের অনিয়ম পরিলক্ষিত হলে তাৎক্ষণিকভাবে কর্তব্যরত আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

৮. পরীক্ষার্থীদের সঙ্গে আগত অভিভাবকবৃন্দকে নিরাপত্তার স্বার্থে তাঁদের জাতীয় পরিচয়পত্র অথবা নিজস্ব পরিচয়পত্র (যদি থাকে) সার্বক্ষণিক সঙ্গে রাখার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।