শামসুজ্জামানের মুক্তি দাবিতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে মানববন্ধন


RU Correspondent | Published: 2023-03-30 22:51:27 BdST | Updated: 2024-05-20 16:13:28 BdST

শামসুজ্জামানের মুক্তি দাবিতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে মানববন্ধন মানববন্ধন করেছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত সাংবাদিকরা

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল ও প্রথম আলোর সাংবাদিক শামসুজ্জামানের নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৩০ মার্চ) দুপুর ১টায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে এ মানববন্ধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত সাংবাদিকরা।

এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রেস ক্লাবের সভাপতি কামরুল হাসান অভি বলেন, ‘বাংলাদেশে সরকারি দল বিরোধী দলের চেয়ে সবচেয়ে বেশি নির্যাতিত করছে সংবাদকর্মীদের। কিছুদিন আগে আমরা দেখেছি সুপ্রিম কোর্টে সাংবাদিকদের যেভাবে নির্দয়ভাবে আহত করা হয়েছে তা বাংলাদেশের ইতিহাসে একটা কালো অধ্যায় রচনা করেছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘ভাত ডালের সংবাদ নিয়ে প্রথম আলোর সাংবাদিককে গ্রেফতার করা হয়েছে। আমরা প্রধানমন্ত্রীকে বলতে চাই এদেশে ভাত, ডাল, কথা বলার অধিকার, ভোটের অধিকার, আইনের অধিকারসহ কোনো অধিকারই প্রতিষ্ঠিত নেই। সাংবাদিকরা এসব স্বাধীনতার জন্য কাজ করতে গেলে আমাদের ওপর নানা চাপ আসে। আমরা সাংবাদিকদের নিরাপত্তা চাই, স্বাধীন দেশে স্বাধীন সাংবাদিকতা করার অধিকার চাই।’

সাংবাদিক সমিতির সভাপতি তৌসিফ কাইয়ূম বলেন, ‘ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন প্রণয়নের পর থেকেই এটার ব্যবহার ও ধারা নিয়ে প্রশ্ন আছে। আমরা দেখেছি সরকার বার বার বলেছে এটার যেন অপব্যবহার করা না হয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। কিন্তু পরিসংখ্যানে দেখা যায় এর বেশিরভাগ মামলা করেছে সরকার দলীয় লোকজন। কিছুদিন আগে চট্টগ্রামে যুবলীগ নেতা যুগান্তরের রিপোর্টারের বিরুদ্ধে মামলা করেছে। কারণ ক্রাইম বিটে কাজ করেন। এটা থেকেই বোঝা যায় তারা একটি প্রক্রিয়ার মধ্যে যাচ্ছে। মানুষের মধ্যে সরকার ভয়-ভীতি তৈরির চেষ্টা করছে।’

মানববন্ধনে বিশ্ববিদ্যালয়ে রিপোর্টাস ইউনিটির সভাপতি শাহিনুর খালিদ জাগো নিউজকে বলেন, কোনো স্টেটমেন্ট ছাড়াই শামসুজ্জামান ভাইকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে এটা একপ্রকারের অপহরণ। তাকে মামলায় অভিযুক্ত করা হয়েছে ২০ ঘণ্টা পর। নিয়ম অনুযায়ী যা চার ঘণ্টার মধ্যে করতে হয়। এটা এক প্রকার উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। এটা কোনো বিশেষ গোষ্ঠী করেছে। তাই আমাদের দাবি তাকে অনতিবিলম্বে নিশর্ত মুক্তি দেওয়া হোক।

এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মরত প্রায় শতাধিক সাংবাদিক এ মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন।